পূর্বপশ্চিম পড়তে ক্লিক করুন
www.pbd.news

  • শনিবার, ২৬ মে ২০১৮, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
  • ||
purboposhchimbd-hrch_cat_news-22
purboposhchimbd-hrch_cat_news-1
purboposhchimbd-hrch_cat_news-33
purboposhchimbd-hrch_cat_news-6
purboposhchimbd-hrch_cat_news-5
purboposhchimbd-hrch_cat_news-2
purboposhchimbd-hrch_cat_news-3
  • লঞ্চ মেরামতে শ্রমিকদের শেষ মুহূর্তের ব্যস্ত সময়। ছবি জীবন আহমেদ
    লঞ্চ মেরামতে শ্রমিকদের শেষ মুহূর্তের ব্যস্ত সময়। ছবি জীবন আহমেদ
  • কেরাণীগঞ্জের ডকইয়ার্ডে লঞ্চ রং এর কাজ করছেন শ্রমিক । ছবিঃ জীবন আহমেদ
    কেরাণীগঞ্জের ডকইয়ার্ডে লঞ্চ রং এর কাজ করছেন শ্রমিক । ছবিঃ জীবন আহমেদ
  • রাজধানীর বুড়িগঙ্গা নদীর আশপাশের এসব ডকইয়ার্ডে শত শত চলাচলের অযোগ্য লঞ্চকে ঈদে ঘরমুখো যাত্রী পরিবহনের জন্য প্রস্তুত করা 0 হচ্ছে। ডকইয়ার্ডে নিয়োজিত শ্রমিকরা দিন-রাত এসব লঞ্চ মেরামতের কাজ করছেন। ছবিঃ জীবন আহমেদ
    রাজধানীর বুড়িগঙ্গা নদীর আশপাশের এসব ডকইয়ার্ডে শত শত চলাচলের অযোগ্য লঞ্চকে ঈদে ঘরমুখো যাত্রী পরিবহনের জন্য প্রস্তুত করা 0 হচ্ছে। ডকইয়ার্ডে নিয়োজিত শ্রমিকরা দিন-রাত এসব লঞ্চ মেরামতের কাজ করছেন। ছবিঃ জীবন আহমেদ
  • পবিত্র ঈদ-উল ফিতরকে সামনে রেখে প্রতি বছরের মতো এবারও ঢাকার কেরাণীগঞ্জের বিভিন্ন ডকইয়ার্ডে পুরনো, ফিটনেসবিহীন ও ভাঙাচোরা লঞ্চ মেরামত ও রং করার কাজ চলছে। ছবিঃ জীবন আহমেদ
    পবিত্র ঈদ-উল ফিতরকে সামনে রেখে প্রতি বছরের মতো এবারও ঢাকার কেরাণীগঞ্জের বিভিন্ন ডকইয়ার্ডে পুরনো, ফিটনেসবিহীন ও ভাঙাচোরা লঞ্চ মেরামত ও রং করার কাজ চলছে। ছবিঃ জীবন আহমেদ
  • পুরাতন লঞ্চকে রঙ লাগিয়ে নতুন করার প্রস্তুতি। ছবিঃ জীবন আহমেদ
    পুরাতন লঞ্চকে রঙ লাগিয়ে নতুন করার প্রস্তুতি। ছবিঃ জীবন আহমেদ
  • কেরাণীগঞ্জের ডকইয়ার্ডে লঞ্চ মেরামতের কাজ করছিলেন শ্রমিক শাহিন। তিনি পূর্বপশ্চিমবিডিকে বলেন, ‘আমি ৪ বছর ধরে লঞ্চ মেরামতের কাজ করি। এখানে লঞ্চগুলো না হলেও আট মাস থেকে দেড় বছর ধরে পড়ে আছে। আর এই লঞ্চগুলো মেরামত শেষে ঈদের আগে যাত্রী বহনে নামানো হবে নদীপথে’। ছবি জীবন আহমেদ
    কেরাণীগঞ্জের ডকইয়ার্ডে লঞ্চ মেরামতের কাজ করছিলেন শ্রমিক শাহিন। তিনি পূর্বপশ্চিমবিডিকে বলেন, ‘আমি ৪ বছর ধরে লঞ্চ মেরামতের কাজ করি। এখানে লঞ্চগুলো না হলেও আট মাস থেকে দেড় বছর ধরে পড়ে আছে। আর এই লঞ্চগুলো মেরামত শেষে ঈদের আগে যাত্রী বহনে নামানো হবে নদীপথে’। ছবি জীবন আহমেদ
  • ডকইয়ার্ডগুলোতে ফিটনেসবিহীন ও লক্কড়-ঝক্কড় লঞ্চ মেরামতে শ্রমিকদের শেষ মুহূর্তের। ছবিঃ জীবন আহমেদ
    ডকইয়ার্ডগুলোতে ফিটনেসবিহীন ও লক্কড়-ঝক্কড় লঞ্চ মেরামতে শ্রমিকদের শেষ মুহূর্তের। ছবিঃ জীবন আহমেদ
  • ডকইয়ার্ডে শত শত চলাচলের অযোগ্য লঞ্চকে ঈদে ঘরমুখো যাত্রী পরিবহনের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। ছবি জীবন আহমেদ
    ডকইয়ার্ডে শত শত চলাচলের অযোগ্য লঞ্চকে ঈদে ঘরমুখো যাত্রী পরিবহনের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। ছবি জীবন আহমেদ
  • রাজধানীর বুড়িগঙ্গা নদীর আশপাশের এসব ডকইয়ার্ডে শত শত চলাচলের অযোগ্য লঞ্চকে ঈদে ঘরমুখো যাত্রী পরিবহনের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। ছবিঃ জীবন আহমেদ
    রাজধানীর বুড়িগঙ্গা নদীর আশপাশের এসব ডকইয়ার্ডে শত শত চলাচলের অযোগ্য লঞ্চকে ঈদে ঘরমুখো যাত্রী পরিবহনের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। ছবিঃ জীবন আহমেদ
  • জনদুর্ভোগের পাশাপাশি রাজধানী ঢাকায় সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট।  ফলে প্রায় দিন অচল হয়ে পড়ে ঢাকা শহর
    জনদুর্ভোগের পাশাপাশি রাজধানী ঢাকায় সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। ফলে প্রায় দিন অচল হয়ে পড়ে ঢাকা শহর
  • সামান্য বর্ষণে ডুবে যায় রাজধানী ঢাকার বেশির ভাগ সড়ক।
    সামান্য বর্ষণে ডুবে যায় রাজধানী ঢাকার বেশির ভাগ সড়ক।
  • মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন একাধিক বার বলেছিলেন, শিগগিরই নগরীর জলাবদ্ধতা সহনীয় মাত্রায় নিয়ে আসা হবে। এজন্য অনেক প্রকল্পও হাতে নেওয়া হয়েছিল।  কিন্তু নগরবাসীর অভিযোগ—কাজের কাজ কিছুই হয়নি। উল্টো জলাবদ্ধতা আরও বেড়েছে।
    মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন একাধিক বার বলেছিলেন, শিগগিরই নগরীর জলাবদ্ধতা সহনীয় মাত্রায় নিয়ে আসা হবে। এজন্য অনেক প্রকল্পও হাতে নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু নগরবাসীর অভিযোগ—কাজের কাজ কিছুই হয়নি। উল্টো জলাবদ্ধতা আরও বেড়েছে।
  • বুধবার সরেজমিন দেখা গেছে, প্রবল বর্ষণে হাঁটুপানির নিচে ডুবে গেছে রাজধানীর এয়ারপোর্ট রোড সহ বিভিন্ন এলাকা। হাঁটুপানিতে থৈ থৈ করছে প্রধান সড়ক।
    বুধবার সরেজমিন দেখা গেছে, প্রবল বর্ষণে হাঁটুপানির নিচে ডুবে গেছে রাজধানীর এয়ারপোর্ট রোড সহ বিভিন্ন এলাকা। হাঁটুপানিতে থৈ থৈ করছে প্রধান সড়ক।
  • সামান্য বর্ষণে ডুবে যায় রাজধানী ঢাকার বেশির ভাগ সড়ক। হাঁটুপানি থেকে শুরু করে কোথাও কোথাও জমে যায় কোমর পানি। বর্ষণে জনদুর্ভোগের পাশাপাশি রাজধানী ঢাকায় সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। ফলে প্রায় দিন অচল হয়ে পড়ে ঢাকা শহর।  ছবিগুলো এয়ারপোর্ট রোড থেকে তোলা
    সামান্য বর্ষণে ডুবে যায় রাজধানী ঢাকার বেশির ভাগ সড়ক। হাঁটুপানি থেকে শুরু করে কোথাও কোথাও জমে যায় কোমর পানি। বর্ষণে জনদুর্ভোগের পাশাপাশি রাজধানী ঢাকায় সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। ফলে প্রায় দিন অচল হয়ে পড়ে ঢাকা শহর। ছবিগুলো এয়ারপোর্ট রোড থেকে তোলা
  • ঢাকার যাত্রাবাড়ীর রহমতপুর এলাকার লক্ষাধিক বাসিন্দারা এক মাস ধরে জলমগ্ন হয়ে থাকায় ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। ছবিঃ জীবন আহমেদ
    ঢাকার যাত্রাবাড়ীর রহমতপুর এলাকার লক্ষাধিক বাসিন্দারা এক মাস ধরে জলমগ্ন হয়ে থাকায় ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। ছবিঃ জীবন আহমেদ
  • নিষ্কাশন নালা ও খাল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর রহমতপুর এলাকার লক্ষাধিক বাসিন্দা এক মাসের বেশি সময় ধরে পানিবন্দি হয়ে আছেন। ছবিঃ জীবন আহমেদ
    নিষ্কাশন নালা ও খাল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর রহমতপুর এলাকার লক্ষাধিক বাসিন্দা এক মাসের বেশি সময় ধরে পানিবন্দি হয়ে আছেন। ছবিঃ জীবন আহমেদ
  • এক মাসের বেশি সময় ধরে পানিবন্দি হয়ে আছেন। রাস্তায় এত পানি যে বাজারেও যাওয়া যাচ্ছে না। সীমাহীন ভোগান্তিতে আছেন তারা। ছবিঃ জীবন আহমেদ
    এক মাসের বেশি সময় ধরে পানিবন্দি হয়ে আছেন। রাস্তায় এত পানি যে বাজারেও যাওয়া যাচ্ছে না। সীমাহীন ভোগান্তিতে আছেন তারা। ছবিঃ জীবন আহমেদ
  • জলাবদ্ধ পানিতে ময়লা, আবর্জনা আর বর্জ্য মিশে এর মধ্যে তা দুর্গন্ধ আর নানা জীবাণুর জন্ম দিয়েছে স্থানীয় বাসিন্দা আবদুল মালেক বলছিলেন, পানির মধ্যে আর কত দিন বসবাস করতে হবে? এভাবে কি মানুষ বসবাস করতে পারে?। ছবিঃ জীবন আহমেদ
    জলাবদ্ধ পানিতে ময়লা, আবর্জনা আর বর্জ্য মিশে এর মধ্যে তা দুর্গন্ধ আর নানা জীবাণুর জন্ম দিয়েছে স্থানীয় বাসিন্দা আবদুল মালেক বলছিলেন, পানির মধ্যে আর কত দিন বসবাস করতে হবে? এভাবে কি মানুষ বসবাস করতে পারে?। ছবিঃ জীবন আহমেদ
  • যাদের ঘরে শিশুসন্তান রয়েছে, তাদের জলবন্দী জীবনে রাত-দিন তাড়া করছে উৎকণ্ঠা; যদি কিছু ঘটে! এই পানিতে সাপখোপের মতো ক্ষতিকর প্রাণী এসে ঘটিয়ে দিতে পারে অঘটন। ছবিঃ জীবন আহমেদ
    যাদের ঘরে শিশুসন্তান রয়েছে, তাদের জলবন্দী জীবনে রাত-দিন তাড়া করছে উৎকণ্ঠা; যদি কিছু ঘটে! এই পানিতে সাপখোপের মতো ক্ষতিকর প্রাণী এসে ঘটিয়ে দিতে পারে অঘটন। ছবিঃ জীবন আহমেদ
  • পানিতে নষ্ট হচ্ছে ঘরের দরকারি ও দামি জিনিস। চোখের সামনে ভিজে অকেজো হচ্ছে অনেক শৌখিন জিনিস। বসে বসে চোখের জল ফেলা ছাড়া কিচ্ছু করার নেই। ছবিঃ জীবন আহমেদ
    পানিতে নষ্ট হচ্ছে ঘরের দরকারি ও দামি জিনিস। চোখের সামনে ভিজে অকেজো হচ্ছে অনেক শৌখিন জিনিস। বসে বসে চোখের জল ফেলা ছাড়া কিচ্ছু করার নেই। ছবিঃ জীবন আহমেদ
purboposhchimbd-hrch_cat_news-4
purboposhchimbd-hrch_cat_news-15
purboposhchimbd-hrch_cat_news-8
purboposhchimbd-hrch_cat_news-19
purboposhchimbd-hrch_cat_news-9
purboposhchimbd-hrch_cat_news-11
purboposhchimbd-hrch_cat_news-21
purboposhchimbd-hrch_cat_news-14