• শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১
  • ||
শিরোনাম

বায়ার্নের দুর্দশার জন্য কেবলই নিজেকে দায় দিতে নারাজ টুখেল

প্রকাশ:  ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০০:০১
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক

দলের দুর্দশার জন্য কেবলই নিজেকে দায় দিতে রাজি নন বায়ার্ন মিউনিখ কোচ থমাস টুখেল। একই সঙ্গে তাকে ও খেলোয়াড়দের নিয়ে এমন মন্তব্য না করতে সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

বুন্দেসলিগায় সবশেষ তিন ম্যাচে হার ও শীর্ষে থাকা লেভারকুসেনের চেয়ে ৮ পয়েন্টে পিছিয়ে থাকার কারণে গুঞ্জন ছিল শেষ হতে পারে টুখেল অধ্যায়। এ সপ্তাহেই টুখেলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নের কথা জানিয়ে দেয় ক্লাব কর্তৃপক্ষ।

টুখেলের সঙ্গে বায়ার্নের বর্তমান চুক্তির মেয়াদ ২০২৫ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত। তবে এখন সেটি শেষ হচ্ছে ২০২৪ সালের ৩০ জুন।

বুন্দেসলিগায় আরবি লাইপজিগের বিপক্ষে শনিবারের ম্যাচের আগে টুখেল এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘‘আমি ক্লাবের সিদ্ধান্ত বুঝতে পারি বা এতে আমি খুশি কি-না তা বিবেচ্য নয়।’’

তিনি বলেন, ‘‘এখন যে বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ তা হল স্বচ্ছতা। স্বচ্ছতা স্বাধীনতা নিয়ে আসে। এটি ম্যাচ এবং প্রশিক্ষণের জন্য ভাল।’’

তিনি আরও বলেন, ‘‘আপনার পছন্দের দীর্ঘমেয়াদী পরিণতি সম্পর্কে আপনাকে ভাবতে হবে না। আপনি একটু বেশি বেপরোয়া হতে পারেন। তবে আপনি কি করবেন, সেটি আপনার সিদ্ধান্ত।’’

২০২৩ সালের মার্চে জুলিয়ান নাগেলসম্যানের কাছ থেকে উচ্চ প্রত্যাশা নিয়ে দায়িত্ব নিয়েছিলেন টুখেল।

তবে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের কাছ থেকে বুন্দেসলিগা শিরোপা ছিনিয়ে নেওয়ার আগে জার্মান কাপ এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে বিপর্যস্ত হয়ে তিনি যেন অনেকটাই পিছিয়ে পড়ছিলেন।

এক দশকেরও বেশি সময় ধরে জার্মান ফুটবলে আধিপত্য বিস্তার করা দলটি এই মৌসুমে যে পারফর্ম করেছে তা অনেকের কাছেই ছিল অপ্রত্যাশিত।

লিগের প্রতিদ্বন্দ্বী বায়ার লেভারকুসেনের কাছে ৩-০ গোলে হেরে যায় বায়ার্ন। এছাড়াও টানা তিন ম্যাচে হারের স্বাদ নিতে হয়েছে জার্মান চ্যাম্পিয়নদের। মৌসুমে ১২ ম্যাচ বাকি আছে। জাবি আলোনসোর দল থেকে আট পয়েন্ট পিছিয়ে বায়ার্ন।

এবার জার্মান কাপ থেকেও ছিটকে পড়েছে জার্মানির সবচেয়ে সফল ক্লাবটি।

২০১৯-২০ ও ২০২০-২১ মৌসুমে হ্যান্সি ফ্লিকের বায়ার্ন যে রেকর্ড গড়েছিল সেই ধারায় নতুন নাম লেভারকুসেন। সব ধরণের খেলায় ৩২ ম্যাচে অপরাজিত তারা।

লেভারকুসেনের কাছে হারের পর বায়ার্ন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের রাউন্ড অফ ১৬তে ইতালীয় দল লাজিওর বিপক্ষে ১-০ গোলে ও লীগে নিম্নতম বোচুমের কাছে ৩-২ ব্যবধানে হেরে যায়।

টুখেল বলেন, ‘‘আমি কখনই অনুভব করিনি, কোচিং স্টাফ হিসাবে আমরা এক হয়ে কাজ করছি না। আমাদের প্রশিক্ষণ ও খেলার মধ্যে পার্থক্য রয়েছে বা কোচ দায়ী তাও নয়।’’

তিনি বলেন, ‘‘আমি মনে করি না যে আমিই একমাত্র সমস্যা। কিন্তু আমি আমার দায়িত্ব স্বীকার করি। আমরা যেভাবে খেলি তাতে আমি সন্তুষ্ট নই। বেশ কিছুদিন ধরে অসন্তুষ্ট ছিলাম।’’

তিনি আরও বলেন, ‘‘এখন আমাদের একটি নতুন পরিস্থিতি রয়েছে। সবার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে তবে আমি মনে করি না যে আমিই একমাত্র সমস্যা।’’

২০২২ সালের শেষ দিকে চেলসি থেকে বরখাস্ত হওয়ার পর টুখেলকে দলে আনেন বায়ার্ন কর্তারা।

বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ও প্যারিস সেন্ট জার্মেইর সাবেক প্রধান তখন বলেছিলেন, ‘‘আমি সম্পূর্ণভাবে বিস্মিত হয়েছিলাম। সময়টি আশ্চর্যজনক ছিল।’’

ওই সময় মৌসুম বাঁচাতে ও ইউরোপের সব লিগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে স্বল্প সময় পেয়েছিলেন টুখেল।

ফ্রেইবার্গের কাছে হেরে ঘরোয়া কাপ থেকে বিদায় নেওয়ার আগে লিগে ডেবিউতে ডর্টমুন্ডকে ৪-২ গোলে পরাজিত করে তার মেয়াদ শুরু হয়েছিল।

পরবর্তীতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টারে ম্যানচেস্টার সিটির কাছে হেরে ছিটকে পড়ে ও লিগ মৌসুমের শেষের দিকে বাজে খেলার কারণে ওই মৌসুম অতটাও ভালো যায়নি বায়ার্নের।

এদিকে স্কাই স্পোর্টস জানিয়েছে, আগামী মৌসুমে নতুন কোচ হিসেবে সাবেক ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কোচ ওলে গুনার সুলশার কিংবা সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ কোচ জিনেদিন জিদানকে আনার কথা ভাবছে বায়ার্ন।

খেলা,ফুটবল,জার্মানি
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close