• শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০
  • ||

বিক্ষোভের ডাক: ইমরান সমর্থকদের সতর্ক করল পুলিশ

প্রকাশ:  ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২২:০০
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক

গত ৮ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে ভোট কারচুপির অভিযোগে বিভিন্ন শহরে প্রতিবাদ-বিক্ষোভের ডাকে ইমরান খানের পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) সমর্থকদের সতর্ক করেছে পুলিশ।

পুলিশ বলেছে, যে কোনো ধরনের অবৈধ সমাবেশ আয়োজন করলে তারা কঠোর অবস্থানে যাবে।

পাকিস্তানের সাধারণ পরিষদ নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি আসনে জয়ী হয়েছেন পিটিআই সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। এর ফলে, দেশটির সেনা সমর্থিত পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) একক সংখ্যাগরিষ্ঠতার পথ বন্ধ হয়েছে।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত ২৬৪ আসনের ফলাফলে দেখা গেছে, সবচেয়ে বেশি ১০১ আসনে জয় পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। এরপরই পিএমএল-এন ৭৫টি আসন পেয়েছে, পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) ৫৪ ও মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট পাকিস্তান (এমকিউএম) ১৭ আসনে জয়ী হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য দল পেয়েছে ১৭টি আসন।

তবে পিটিআই নেতাদের দাবি, ভোট কারচুপি না হলে তারা আরও বেশি আসন পেতেন।

বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভোটগ্রহণের দিন মোবাইল পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া এবং ফল ঘোষণায় ধীরগতি সন্দেহের জন্ম দিয়েছে যে, সেনাবাহিনী পিএমএল-এন-কে জেতাতে নির্বাচনকে প্রভাবিত করেছে।

গতকাল শনিবার পিটিআই চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার গহর খান এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, “পুরো পাকিস্তানে নির্বাচনে সূক্ষ্ম কারচুপি হয়েছে।” তিনি সমর্থকদের রবিবার “শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ” করার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

এ ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে রবিবার সারা দেশে পিটিআই এবং অন্যান্য দলগুলোকে ছোট ছোট বিক্ষোভ করতে দেখা গেছে।

এদিকে, পাকিস্তানের শাসকদের পক্ষ থেকে যে কোনো ধরনের কর্মসূচি পালন থেকে বিরত থাকতে কঠোরভাবে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রবিবার ইসলামাবাদ পুলিশের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “কিছু ব্যক্তি নির্বাচন কমিশন এবং অন্যান্য সরকারি অফিসের আশপাশে অবৈধ জমায়েতের চেষ্টা করছে। বেআইনি সমাবেশের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এখন সমাবেশের জন্য আবেদন করাও অপরাধ।

নির্বাচন,আন্তর্জাতিক,পাকিস্তান,ইমরান খান
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close