• বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ৩ কার্তিক ১৪২৫
  • ||

যৌতুক দিতে না পারায় গৃহবধূর বিষপান

প্রকাশ:  ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:৫৮ | আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২২:০১
পিরোজপুর সংবাদদাতা
প্রিন্ট

পিরোজপুরের নাজিরপুরে যৌতুক দিতে না পেরে বিষপান করেন তহমিনা আক্তার ময়না (২৫) নামের এক গৃহবধূ। আর পরে তাকে চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে চিকিৎসকের অবহেলায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেন নিহতের বাবা আজাহার আলী শেখ।

সোমবার নাজিরপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

লিখিত বক্তব্যে আজাহার আলী শেখ জানান, তার মেয়ে তহমিনা আক্তার ময়নাকে গত ৫ বছর আগে উপজেলার সেখমাটিয়া ইউনিয়নের রঘুনাথপুর গ্রামের সরোয়ার হোসেন খানের ছেলে রুবেল খানের সঙ্গে বিয়ে দেন। বিয়ের সময় তিনি জামাতা রুবেলকে নগদ দেড় লাখ টাকাসহ উপহারসামগ্রী দেন। কিছুদিন পরে রুবেলসহ তার পরিবার আরও যৌতুক দাবি করে ময়নাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন শুরু করে।

তিনি জানান, বিষয়টি নিয়ে কয়েক দফা স্থানীয়ভাবে সালিশ বৈঠক হলেও যৌতুকের দাবিতে ময়নার ওপর নির্যাতন বন্ধ হয়নি। গত বৃহস্পতিবার সকালে ময়নার স্বামী আবারো যৌতুক দাবি করে এবং দাবিকৃত টাকা না দিলে তাকে তালাক দেয়ার হুমকি দেয়। ময়না এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে যৌতুক দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে ময়নাকে নির্যাতন করে রুবেল।

সংবাদ সম্মেলনে নিহতের বাবা বলেন, একপর্যায়ে স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজনদের নির্যাতন সইতে না পেরে ওই দিন বিকালে ময়না বিষপান করে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করে। তখন তার পরিবারের লোকজন ময়নাকে চিকিৎসার জন্য নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এনে ভর্তি করে।

সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শোভন রায় চৌধুরী হাসপাতালের ওয়ার্ডবয় কামরুল ও বহিরাগত দুজন ব্যক্তির মাধ্যমে ময়নাকে ওয়াশ করান। এ সময় ময়না সুস্থতা অনুভব করে আর ওয়াশের প্রয়োজন নেই বলে চিৎকার করলে জালাল নামের বহিরাগত ব্যক্তি ময়নার বুকের ওপর ওঠে ওয়াশ অব্যাহত রাখলে ময়নার মৃত্যু হয়।

এ সংবাদ পেয়ে ডাক্তার শোভন রায় চৌধুরী ওয়াশ করার কক্ষে গিয়ে ময়নাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে ডা. শোভন রায় চৌধুরী বলেন, চিকিৎসায় কোনো ত্রুটি হয়নি। অতিরিক্ত বিষপান করায় বিষক্রিয়া শরীরে ছড়িয়ে পড়ায় তার মৃত্যু হয়েছে। আমরা বাঁচানোর জন্য সাধ্য অনুযায়ী চেষ্টা করেছি।

বহিরাগত লোক দিয়ে ওয়াশ করাতে পারেন কিনা? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তারা হাসপাতালের ওয়ার্ড বয়। আমাদের তদারকিতে তারাই মূলত ওয়াশের কাজটি করে থাকে।

নাজিরপুর থানার ওসি একেএম সুলতান মাহমুদ বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রুজু করে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পরে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পিরোজপুর