• সোমবার, ২৩ জুলাই ২০১৮, ৮ শ্রাবণ ১৪২৫
  • ||

সাব-রেজিস্টারের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে মিছিল

প্রকাশ:  ০৯ জুলাই ২০১৮, ১৮:২৭ | আপডেট : ০৯ জুলাই ২০১৮, ১৮:২৯
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
প্রিন্ট

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে সাব-রেজিস্টারের বিভিন্ন অনিয়ম ও প্রায় দুই মাস থেকে অফিস না করায় তার অপসারণের দাবিতে দলিল লেখক, ক্রেতা-বিক্রেতারা বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।

সোমবার (৯ জুলাই) দলিল লেখক সমিতির সভাপতি ও সম্পাদকের নেতৃত্বে সাব-রেজিস্ট্রি অফিস থেকে মিছিলটি শুরু করে শহরের গুরত্বপূর্ণ রাস্তা প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসের সামনে সমাবেশ করে।

সমিতির সভাপতি নুরুল হকের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সমিতির সম্পাদক মিজানুর রহমান, জমি ক্রেতা হায়দার আলী প্রমুখ। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করা হয়।

জানা গেছে, ভূরুঙ্গামারী উপজেলা সাব রেজিস্ট্রি অফিসে প্রায় এক বছর আগে নাবীব আফতাব সাব-রেজিস্টার হিসাবে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকে দলিল লেখক সমিতির সদস্যদের মধ্যে প্রযোজনীয় কাগজ পত্র জমাদান, দলিল সম্পাদনে উৎকোচ দাবি করায় সমিতির সদস্যদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছিলো। এই দ্বন্দ্বের কারণে উক্ত সাব-রেজিস্টার প্রায় দুই মাস থেকে অফিস না করায় জমি ক্রেতা ও বিক্রেতাদের ভোগান্তি চরমে ওঠে।

এক পর্যায়ে সোমবার সাব-রেজিস্টার অফিসে আসলে এবং বিভিন্ন অজুহাতে দলিল সম্পাদন না করায় ক্ষুব্দ ক্রেতা-বিক্রেতা ও প্রায় ১৪০ জন দলিল লেখক সাব-রেজিস্টার অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিলও সমাবেশ করে এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করে।

শিলখুড়ি ইউনিয়নের উত্তর ধলডাঙ্গা গ্রামের সিদ্দিক আলীর ছেলে আব্দুল জলিল জানান, আমার পঙ্গু পায়ের চিকিৎসার জন্য প্রায় এক মাস থেকে দুই শতক জমি বিক্রি করার চেষ্টার করছি কিন্তু জমি রেজিস্ট্রি হচ্ছেনা।

উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুন্নবী চৌধুরী জানান, তিনি নিজেও সাব-রেজিস্টার দ্বারা হয়রানীর শিকার হয়েছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাগফুরুল হাসান আব্বাসী জানান, সাব-রেজিস্টার সাহেবের নতুন স্টেশন হওয়ায় একটু সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা চলছে এবং ইতোমধ্যে দলিল সম্পাদনের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

সাব-রেজিস্টার নাবীব আফতাবের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, দলিল লেখকদের সাথে আমার মিউচ্যুয়াল হয়েছে আর কোন ঝামেলা নাই।

উল্লেখ্য, উক্ত সাব-রেজিস্টারের বিরুদ্ধে উৎকোচ দাবি, মাদক সেবন, অশালীন আচরণসহ বিভিন্ন অনিয়মের লিখিত অভিযোগ করেছে দলিল লেখকরা।

ওএফ

দুর্নীতি,মিছিল,কুড়িগ্রাম