• বুধবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৮, ৯ কার্তিক ১৪২৫
  • ||

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে স্বস্থি

প্রকাশ:  ১৪ জুন ২০১৮, ২০:২৭
তপু আহম্মেদ, টাঙ্গাইল
প্রিন্ট

যানজট আর ভোগান্তির নামই ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়ক। কিন্তু পুরোই উল্টো চিত্র এবারের ইদ যাত্রায়।

পবিত্র ঈদুল ফিতরে দিনক্ষণ যতই এগিয়ে আসছে ততই মহাসড়কে রয়েছে বাড়তি গাড়ির চাপ কিন্তু নেই কোথাও কোন যানজট। যাত্রী, চালক ও স্থানীয়দের দাবি রাস্তা সম্প্রসারণের চেয়ে বেশি সুফল আসছে প্রশাসনের কঠোর নজরদারির কারণে। অনেকেই বলেছেন চার লেনের অনেক অংশই পূর্বেও খুলে দেওয়া হলেও যানজট ছিল নিত্য সঙ্গী। কিন্তু ঈদকে কেন্দ্র করে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটদের সমন্বয়ে গঠিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের টহল ও পুলিশ প্রশাসনের বাড়তি নিরাপত্তা এবং কঠোর নজরদারিই স্বস্তি ফিরিয়েছে এ মহাসড়কে চলাচলরতদের।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজা মো. গোলাম মাসুম প্রধানের নেতৃত্বে টাঙ্গাইল রাবনা বাইপাস হতে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত ভ্রাম্যমণ আদালত টহল দেয়।

পরে এলেঙ্গা এসে প্রেস ব্রিফিংকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজা মো. গোলাম মাসুম প্রধান বলেন, জেলা পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এ ঈদে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক যানজটমুক্ত রাখতে মহাসড়কের রাবনা বাইপাস থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু, নগর জলফৈই থেকে পাকুল্যা ও মির্জাপুর থেকে গোড়াই পর্যন্ত তিনটি পয়েন্টে ৬ জন ম্যাজিস্ট্রেট মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছে।

তিনি আরও বলেন, এ মোবাইল কোট যানবাহন আটকে রেখে ভোগান্তি সৃষ্টি বা জরিমানা করার উদ্দেশ্যে নয়। মানুষের সেবা করার জন্য, ইদ যাত্রায় স্বস্তি ফিরাতে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে ঘুরে কাজ করছে।

মহাসড়কে ফিটনেস বিহীন যানবাহন চলাচল বন্ধ, রাস্তার মাঝখানে পার্কিং করে যাত্রী উঠা-নামা না করা, রাস্তায় কোন গাড়ি বিকল হলে তা দ্রুত রেকার দিয়ে রাস্তা পরিষ্কার করা ছাড়াও যানজটমুক্ত মহাসড়কের জন্যই ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করছে বলেও তিনি দাবি করেন।