• বুধবার, ১৫ আগস্ট ২০১৮, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫
  • ||

ক্যাম্পাসে ঈদ করবে রাবির বিদেশি শিক্ষার্থী

প্রকাশ:  ১০ জুন ২০১৮, ১৬:২২
রাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট

ঈদ মানে ঘরে ফেরার উৎসব। আপনজনদের সান্নিধ্যে আনন্দ ভাগাভাগি ছাড়া যেন অপূর্ণ হয়ে পড়ে দিনটি। দেশের অন্যতম উচ্চশিক্ষার বিদ্যাপিঠ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) সব শিক্ষার্থী ইতোমধ্যে ক্যাম্পাস ছেড়েছেন। তবে ক্যাম্পাসে রয়ে গেছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আসা অধিকাংশ বিদেশি শিক্ষার্থীরা। তাদের কেউ পড়াশোনার কারণে নিজ ভূমে ফেরেনি, আবার কেউ কেউ ভিসা জটিলতার জন্য যাচ্ছেন না দেশে। তবে বিশ্ববিদ্যালয় তথা রাজশাহীতে ঈদ উদযাপনের অনুভূতি নিতেও থেকে গেছেন কয়েকজন।

তাদের একজন জর্ডান থেকে আসা সাইফুদ্দিন। সে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। সাইফুদ্দিন বলেন, ‘রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর থেকে আমি ক্যাম্পাসে দারুন উপভোগ করি। এখন গোটা বিশ্ববিদ্যালয়ে আমার অসংখ্য বন্ধু। তারা খুব হাসি-খুশি এবং আড্ডা প্রিয়। ক্যাম্পাসের চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সবাই খুব পরিচিত। তাই এবার এখানে ঈদ করবো। বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে ঈদের নামাজ আদায় করবো। আশা করছি- অনেক মজা হবে।’

আরেক শিক্ষার্থী রাঈদ বলেন, ‘ক্যাম্পাস জীবনটা খুব উপভোগ করছি। বুঝতেই পারি না অন্য দেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছি আমি। পরিবার ছেড়ে এখানে এবার ঈদ করবো। স্থানীয় যারা শিক্ষার্থী তাদের অনেকের বাসায় ঈদের দাওয়াত পেয়েছি। সবাই ঈদ ভালো কাটুক।’

রেজিস্ট্রার দফতর সূত্র জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগে বর্তমানে ২৮ জন শিক্ষার্থী নিয়মিত পড়াশোনা করছেন। তাদের জন্য সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেয়া হচ্ছে। তারা মীর আব্দুল কাইয়ূম ইন্টারন্যাশনাল ডরমিটরিতে বসবাস করেন।

ডরমিটরির সহকারী রেজিস্ট্রার অসিত সরকার জানান, ডরমিটরিতে ২৮ জন শিক্ষার্থী রয়েছেন। এদের মধ্যে নেপালের ১৫ জন, সোমালিয়ার ১১ জন ও জর্ডানের দুইজন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ১০ জন ঈদে না থাকার কথা জানিয়েছেন। বাকি ১৮ জন ক্যাম্পাসে ঈদ করবেন। তাদের জন্য ডরমিটরি থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান বলেন, যেহেতু ঈদে ক্যাম্পাস ফাঁকা থাকবে। বিদেশী শিক্ষার্থীরা যাতে কোনো সমস্যায় না পড়ে এজন্য প্রক্টরিয়াল বডির সদস্য এবং পুলিশ প্রশাসন সজাগ থাকবে। তাদের সবসময় খোঁজ-খবর রাখা হবে।

ওএফ