• রবিবার, ২৭ মে ২০১৮, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
  • ||

মাকে বেঁধে শিশুকে হত্যা করলো হিজড়ারা

প্রকাশ:  ০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৫:৩৯
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট
তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের (হিজড়া) জন্য সমাজ এবং রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে নানা পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। তাদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দেয়া হচ্ছে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে তারা সেই সুযোগ গ্রহণ না করে বাসা-বাড়ি এবং দোকান-পাটে গিয়ে সাহায্য-সহযোগিতা চাচ্ছেন। প্রায়ই দেখা যায় তারা চাঁদাবাজদের মতো আচরণ করছেন। তাদের দাবীকৃত অর্থ না দেয়া হলে, তুকালাম কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলেন।

টাকা দিতে না চাইলেই শুরু হয়, নানা রকম নির্যাতন। অনেক সময় মান-সম্মানের ভয়ে টাকা দিয়ে দেন লোকজন। আর যারা দেন না তাদের হেনস্থা করে ছাড়া হয়। কিন্তু এবার তাদের এ অপরাধের মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে।     

সম্প্রতি ঢাকার যাত্রাবাড়ীর একটি এলাকায় টাকা না দেয়ায় হিজড়ারা ১৫ দিনের শিশুকে পানিতে ডুবিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সমালোচনার ঝড় তুলেছে। সবাই এই ঘটনায় অভিযুক্ত হিজড়াদের শাস্তি দাবি করছেন। বুধবার দুপুরের দিকে যাত্রাবাড়ীর ওই বাসায় আসেন হিজড়ারা। তারা নবজাতকের মায়ের কাছে টাকা দাবি করেন। কিন্তু তখন বাসায় প্রতিবন্ধী মা ছাড়া কেউ ছিলেন না।

দাবিকৃত টাকা না দেয়ায় শিশুটির বাক প্রতিবন্ধী মাকে ঘরে বেঁধে রাখেন। আর ১৫ দিনের শিশুকে টয়লেটের বালতিতে উপুড় করে ফেলে তালা মেরে চলে যান হিজড়ারা। প্রায় ১০ মিনিট পর তালা ভেঙ্গে শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হলে ডাক্তার শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ রকম আরও কিছু ঘটনা রয়েছে। এক বিয়ের অনুষ্ঠানে ১১ হাজার টাকা দাবি করে হিজড়ারা। কিন্তু সেই টাকা না দেয়ায় কূরুচিপূর্ণ ভঙ্গিতে নাচতে থাকেন।

এমনকি রাস্তা-ঘাটে লোকজনকে ধরে চাঁদা দাবি করেন। তাদের কাঙ্খিত টাকা না দিলে অসম্মান করেন।

 

/পি.এস