• শনিবার, ২৬ মে ২০১৮, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
  • ||

‘চাঁদ’ ভালবাসতেন ইমরান, ঝড় উঠেছিল দুনিয়ায়

প্রকাশ:  ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৫:৪৭
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট
সবুজ মাঠে রাজার মতো নামতেন৷ গ্লামার ঝলকে পড়ত৷ ব্যাটে উঠত ঝড়৷ আর গ্যালারিতে কারোর হৃদয়ে উঠতো তখন তুফান৷ অলক্ষ্যে হালকা গোলাপের ইশারা৷ সবমিলে এক জমজমাট নিঃশব্দ প্রেম৷ কে জানে না এই কথা৷ এক বাঙালি অভিনেত্রী ও এক পাকিস্তানির চোরাগোপ্তা প্রেমের অধুরি কহানি…

আশির দশকে পাকিস্তান ক্রিকেটের গ্ল্যামার বয় হিসেবে উঠে আসছেন পেসার ইমরান খান৷ সুপুরুষ ইমরানের পেছনে পাগল ছিলেন তখনকার এক ডাইসাইটে বঙ্গ সুন্দরী৷ অনেকে বলেন সেই ইমরান পাগলিনী আসলে বাংলা সিনেমার ‘রিনা ব্রাউন’ সুচিত্রা সেনের একমাত্র মেয়ে মুনমুন৷ ইমরানকে শুভেচ্ছা জানাতে গোলাপ হাতে তিনি উপস্থিত থাকতেন গ্যালারিতে৷

এই সম্পর্ক নিয়ে প্রচুর আলোচনা হলেও শেষমেশ কোন কিনারা পায়নি মুনমুনের নৌকো৷ তিনি বিয়ে করেছেন অন্য পুরুষকে দুই মেয়েও রয়েছে তাঁর৷ অন্যদিকে ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পর ইমরান খান এখন পাকিস্তানের রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছেন আর এই ৭৬ বছর বয়সে এসেও বিয়ে করে চলেছেন৷

ক্রিকেট দুনিয়ার অসমাপ্ত প্রেমের গল্পের দ্বিতীয় নম্বরেই নাম রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান ভিভিয়ান রিচার্ডস ও বলিউড অভিনেত্রী নীনা গুপ্তা৷ এই জুটিকে নিয়ে পঞ্চাশের দশকে তোলপাড় হয়েছিল বলিউড ও ক্রিকেট মহল৷ তারা অবশ্য অনেকটা এগিয়েও যান৷ কে বলে লিভ ইন রিলেশন সমকালীন? ভিভ-নীনার সম্পর্ক তাহলে কী? নীনা এবং ভিভের এক মেয়েও রয়েছে মাসাবা গুপ্তা৷ কিন্তু এই জুটি কোনদিন বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হননি৷

ষাটের দশকে প্রেমের ফাঁদে ধরা পড়েছিলেন বলিউড ও ক্রিকেটের এক জুটি, আঞ্জু মাহেন্দ্রু এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটার গ্যারি সোবার্স৷ বিয়ের দোরগোড়ায় এসেও আঞ্জুর বাড়ির আপত্তির জন্য শেষমেশ ভেঙ্গে যায় এই জুটি৷

অধূরি কহানি ঠিকই তবে এঁদের প্রেম আজোও মানুষের কাছে চর্চার বিষয়৷ ঠিক এখানেই প্রেম জিতে গেছ সব না পাওয়াকে হারিয়ে৷ আসলে বিরহও তো প্রেমেরই অংশ৷

বাসন্তী তাঁর চোখের তারা, ওষ্ঠে ফাগুন সূচি
বিষের স্বাদ যে পেয়েছে, তার অমৃতে কী রুচি?

/এস কে