• রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮, ৪ ভাদ্র ১৪২৫
  • ||

আসিফকে আদালত রিমান্ড না দেয়ায় হতাশ শফিক তুহিন

প্রকাশ:  ০৮ জুন ২০১৮, ১৩:৩২ | আপডেট : ০৮ জুন ২০১৮, ১৩:৪২
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট

চিলে কান নিয়ে গেছে, এই গল্প সবারই জানা। প্রসঙ্গ হচ্ছে, আসিফ ভাই (আসিফ আকবর) একটি আইসিটি মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছেন, এটা গত পরশু (৫ মে, মঙ্গলবার) রাতের ঘটনা। পরদিন মানে কাল (৬ মে, বুধবার) তাকে আদালতে হাজির করে পুলিশ রিমান্ড আবেদন করে। কিন্তু আদালত তাকে রিমান্ড নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠায়। পবিত্র রমজান মাসে অনাকাঙ্খিত এই ঘটনায় হতবাক দেশ-বিদেশের সংগীতপ্রেমীরা ও চরমভাবে বিব্রত পুরো সংগীতাঙ্গন।

আসিফ ভাই যখন আদালতের কাঠগড়ায় দাড়িয়ে, ঠিক সে সময়ে (৬ মে, বুধবার) আমার মোবাইলে একাধিকবার ফোন করেন শফিক তুহিন, যিনি এই মামলাটি দায়ের করেছেন। তিনি জানতে চান তাকে (আসিফ আকবর) রিমান্ড দেয়া হয়েছে কি না? সে সময় আমি খুব ব্যস্ত। তার কণ্ঠ শুনে খুব অবাক ও বিরক্ত হলাম এই ভেবে যে, কোথায় তারা নিজেদের মধ্যে ‘সৃষ্ট সমস্যা’ আলাপ-আলোচনা করে মিটাবে, তা না করে থানা-পুলিশ-রিমান্ড পর্যন্ত চলে গিয়েছে। আমি উনাকে শুধু বললাম, ‘না ভাই, আদালত রিমান্ড দেয় নাই। আর আমি এখন ব্যস্ত, পরে কথা হবে। তিনি বললেন, আচ্ছা।’ আমি ফোন রেখে দিলাম। তখন আমার মনে হলো, আদালত রিমান্ড না দেয়ায় তিনি যেন বেশ হতাশ হয়েছেন।

যার যার কাছে তার তার সম্মান সবার উর্ধ্বে। কারণ, সবারই আলাদা আলাদা শ্রোতাগোষ্ঠী (কম-বেশি) আছে; আছে পরিবার। আর শিল্পীদেরকে সাধারন মানুষ/শ্রোতারা আইডল ভাবেন। তাই এমন কিছু বলা বা করা উচিত না যাতে পুরো শিল্পী সমাজের মুখে চুনকালি পড়ে যায়। কিন্তু আমি মনে করি, এই ঘটনায় তার থেকেও বেশি কিছু হয়েছে।

আমার মনে হয়, খুব তুচ্ছ কিছু বিষয় থেকে পরষ্পরের প্রতি এই ঘৃণা দীর্ঘদিন ধরে তিলে তিলে সৃষ্টি হয়ে আজ বিরাট আকার ধারণ করেছে। কেউ একজনকে আমার কিংবা আমাকে অন্য কারো ভালো নাই লাগতে পারে। এটা যার যার ব্যক্তিগত বিষয়। এগুলো গোপন থাকাই ভালো। একজন আরেকজনকে এড়িয়ে চললেইতো হয়। তাই বলে এতো বিদ্বেষ হবে কেন? আর ‘চিলে কান নিয়ে গেছে’ বলতে বলতে একে অন্যকে কটুক্তি করে সম্মিলিতভাবে কাদা ছোড়াছুড়িও বা শুরু করতে হবে কেন?

'মত প্রকাশের স্বাধীনতা' মানে এই নয়, আমার যখন যা খুশি, যেখানে খুশি, যাকে খুশি অপমান-অসম্মান করবো। আমরা ‘সভ্য হতে পারিনি’ এই কথা কেন এখনও আমাদের শুনতে হবে?

এটা মানতেই হবে, একজন শিল্পীর যোগ্যতা, সম্মান ও মানুষের মনে জায়গা পাওয়া এর পুরোটাই কিন্তু সৃষ্টিকর্তারই সেরা দান। সুতরাং নিজের অর্থ-বিত্ত, যশ-খ্যাতি, ক্ষমতা নিয়ে একবারের জন্যও গর্ব-অহংকার করার আগে লক্ষ-কোটিবার আল্লাহর দানের কথা ভাবলে হিংসা-বিদ্বেষ সব ধুয়েমুছে যাবে। সম্মান দেয়া ও নেয়ার মালিক কিন্তু একমাত্র আল্লাহ। তাই কাউকে সম্মান দিলে প্রকৃতপক্ষে নিজেরই সম্মান বাড়ে।

আমি অবশ্যই চাই, কারো প্রতি যেন অন্যায়-অবিচার না হয়। তবে তা অবশ্যই সুন্দরভাবে; পেশীশক্তি দিয়ে নয়। তা না হলে আমাদের ভবিষ্যত আমরা নিজেরাই আরও অন্ধকার করে একসময় আফসোস করবো।

এই ঘটনার দ্রুত অবসান ঘটুক ও আসিফ আকবর ASIF ভাই দ্রুত সুস্থভাবে সবার নিকট ফিরে আসুক। এটাই একমাত্র কামনা.....

(বি:দ্র: কাউকে অসম্মান করা থেকে বিরত থাকুন)

ফাহিম ফয়সালের ফেসবুক থেকে নেয়া