• বুধবার, ২০ জুন ২০১৮, ৬ আষাঢ় ১৪২৫
  • ||
শিরোনাম

ধর্ষণ বা বিড়ম্বনার কারণ কি শুধু মেয়েদের পোশাক?

প্রকাশ:  ৩০ মে ২০১৮, ০০:২৪
আরিয়ানা ইসলাম
প্রিন্ট

গতদিন বিকেলে নিজ প্রয়োজনে নিউমার্কেটে যাওয়ার জন্য অটোতে উঠতে গিয়ে দেখি পিছনের ডাবল সিটে লম্বা দাড়িওয়ালা সাদা পাঞ্জাবী পায়জামা পরা এক ব্যক্তি বসে আছেন,,সময় কম তাই অন্য অটোর জন্য অপেক্ষা না করে উঠে বসে পড়লাম।।দুইজন বেশ ভালো ভাবেই যেহেতু বসা যায়,সেহেতু উনাকে সামনে অথবা ড্রাইভারের পাসে বসতে বলতে পারিনি নৈতিকতার দায়ে।।

যাইহোক, আমার বাসা থেকে খুলনা নিউমার্কেট যেতে ১০ টাকা ভাড়া,,এতোটুকু পথে যেতে সময়ে ব্যক্তিটি নিজের জন্য দুই তৃতীয়াংশ জায়গা দখল করে বসে আল্লাহর নামে জিকির এবং দোওয়া দরুদ পাঠ করেছেন,,বার বার উনার গায়ের সাথে আমার স্পর্শ লাগতেছে দেখে নিজেই বিড়ম্বিত হচ্ছিলাম!

একবার অবশ্য বলেছিও একটু সরে বসতে,,উনি পাত্তা না দিয়ে দোওয়া পড়তেই আছেন। বিরক্ত হয়ে তাকিয়ে দেখি উনার পাশে যথেষ্ট জায়গা থাকতেও এক চুল সরে বসেননি। নিউমার্কেটের প্রায় ১০০ গজ আগে উনি নেমে গেলেন ঠিকই তবে গন্তব্যে এসেও মিনিট ৩/৪ বসে এদিক ওদিক উঁকিঝুঁকি করলেন অজানা কারণে। অবশেষে ড্রাইভার বললো হুজুর আপনি তো এখানেই নামবেন বলেছিলেন!!অতঃপর নেমে গেলেন উক্ত ব্যক্তি।

কথাগুলো বলার কারণ, আমি আমার বয়স আমার পোষাক এবং সাজসজ্জায় যথেষ্ট সংযত ছিলাম একজন রোজাদার হিসেবে।আমার প্রশ্ন, ধর্ষণ অথবা বিড়ম্বিত হওয়ার কারণ কি শুধু মেয়েদের পোশাক?

আমি আগে থেকেও জানি এবং বর্তমানেও বিশ্বাস করি কতিপয় নয় তারচেয়েও অধিক অধিক বেশি সংখ্যক অসভ্য ব্যক্তিই এই সমাজ সংসার তথা সমাজের নিরুপায় মানুষের উপর জুলুম করে চলেছে,,অত্যাচার অবিচার করে চলেছে অসভ্যরা নিরুপায় সভ্যদের প্রতি। সবাই খারাপ নয় অবশ্যই, তবে একটা বিষয় বেশ ভালোভাবে উপলব্ধি করি প্রতি পলে পলে,,বয়স্কদের চেয়ে ইয়াং ছেলেরাই বেশিরভাগ সময়ে মেয়েদের এবং মহিলাদের প্রতি উপযুক্ত সম্মান প্রদর্শন করে। উক্ত ব্যক্তি ইসলামের লেবাস পরিধান সহ আল্লাহর নাম যপনা করতে করতেও একমূহুর্তের জন্য শয়তানি ছাড়ে নাই, উনাকে কোনোভাবেই আমি ভদ্রলোক বলতে পারছিনা হয়তো এটাই আমার অসঙ্গতি। শয়তানি বজ্জাতি কেউ কেউ তার আচরণেই লালন করে বেহায়ার মতো,,এগুলোর জন্য স্পেশাল কোনো কারণ লাগেনা। যদি আজ উক্ত ব্যক্তি ইয়াং ছেলে অথবা মেয়েদের হাতে পড়তো তাহলে আমি নিশ্চিত,আজ উনার একটা দফারফা হতোই। এলাকায় সামান্য হলেও একটা পরিচিতি আছে বিধায় পুরুষ লোকটার সাথে কোনো প্রকার অশালীন আচরণ করিনি,,তাছাড়া উনি আগে উঠেছেন বলেই আমার বুঝে উঠা উচিত ছিলো,,এটা ভেবে নিরবে নিজেকে সংযত রাখতে বাধ্য হয়েছি।

সমাজের এই সকল ছন্নছাড়া ব্যক্তি সংবেদনশীল হবে কবে??কবে ওদের স্বভাব পরিবর্তন হবে সেটাই ভেবে পাই না!

(ফেসবুক স্ট্যাটাস)