• রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫
  • ||

ঢাবিতে পড়ার স্বপ্ন পূরণ হলো না হৃদয়ের

প্রকাশ:  ০৬ নভেম্বর ২০১৮, ২১:৫৮
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় মায়ের কোলে চড়ে হাজির হয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছিলেন সেরিব্রালপালসিতে আক্রান্ত নেত্রকোনার হৃদয় সরকার। তবে উত্তীর্ণ হলেও সিরিয়ালে পিছিয়ে থাকায় ঢাবিতে ভর্তি হতে পারেননি তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় 'খ' ইউনিটে ২ হাজার ৩৮৩টি আসনের বিপরীতে হৃদয়ের সিরিয়াল ৩ হাজার ৭৪০। প্রতিবন্ধী কোটায় আসন খালি থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয় আইনে দৃষ্টি, শ্রবণ ও বাকপ্রতিবন্ধী ছাড়া কাউকে এই কোটার উপযুক্ত মনে না করায় শারীরিক প্রতিবন্ধী হওয়া সত্বেও বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারছেন না তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে না হৃদয়ের। মায়ের কোলে চড়ে যেমনি ঢাবিতে এসেছিলেন তেমনি মায়ের কোলে চড়েই এবার বিদায় নিতে হচ্ছে তাকে।

এ বিষয়ে হৃদয় সরকার জানান, আমার বাবা-মা বিশ্ববিদ্যালয়ে ফরম আনতে গেলে তাদের বলা হয় আমি নাকি কোটার মধ্যে পড়ি না। এরপরে ডীন এবং ভিসি স্যারও একই কথা বললেন। বিশ্ববিদ্যালয় বিধিমতে আমার প্রতিবন্ধী কোটায় ভর্তির কোন সুযোগ নেই।

ঢাবি কলা অনুষদের ডীন আবু মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, ভর্তি পরীক্ষায় বসার যোগ্যতা থাকলে সবাই অংশ নিতে পারবে। কিন্ত ভর্তির সময়র কোটার বিষয়ে আলাদা বিধিমালা থাকায় যে কেউ কোটায় ভর্তি হতে পারবে না।

ভর্তি পরীক্ষার সময়ে মায়ের কোলে চড়ে পরীক্ষা হলে যাবার সময় ফটোগ্রাফারের তোলা সেসময়ের ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রাতারাতি ভাইরাল হয়ে যায়। সে ছবিতে ফুটে ওঠে হার না মানা এক মা আর তার পুত্রের স্বপ্নপূরণের পথে এগিয়ে যাবার অদম্য ইচ্ছাশক্তির।

হৃদয়ের মা সেসময় জানিয়েছিলেন, হৃদয় ঢাবিতে ভর্তি হতে পারলে পুরো পরিবারই ঢাকাতে চলে আসবেন। হৃদয়কে ঢাবিতে পড়ানোর স্বপ্ন জানিয়ে তিনি বলেছিলেন, আমি বেঁচে থাকতে তার যেনো চলতে কষ্ট না হয় তাই আমি সবসময় তার পাশেই থাকবো।

উল্লেখ্য, গত ২১শে সেপ্টেম্বর ঢাবি 'খ' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ৩৩ হাজার ৮৯৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪ হাজার ৭৪৭ জন উত্তীর্ণ হয়েছিলেন।

/আইসা

ঢাবি,ভাইরাল
apps