• সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫
  • ||

কাঁধে বাজার নিয়ে মধ্যরাতে অনাহারির বাসায় এমপি!

প্রকাশ:  ১৪ আগস্ট ২০১৮, ১৫:১৪
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট

মধ্যরাতে অনাহারি দরিদ্র পরিবারের ভাঙা কুটিরে কাঁধে বাজার সদাই নিয়ে উপস্থিত একজন সংসদ সদস্য। এমন কথা যদি শোনেন তাৎক্ষণিকভাবে আপনার কী মনে হবে? মনে হতে পারে আরব্য রজনীর কোনো গল্পের অংশ। আদতে তা নয়। এমনটি ঘটেছে সাতক্ষীরায়। আর এই কাজ করেছেন সাতক্ষীরা চার আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য জগলুল হায়দার চৌধুরী।

সোশ্যাল মিডিয়া থেকে থেকে শুরু করে জাতীয় পর্যায়ের গণমাধ্যমেও উঠে আসছে তার কর্মকাণ্ডের বৃত্তান্ত। এমপি জগলুলের এসব কর্মকাণ্ডের প্রশংসা করছেন অনেকে। কেউ কেউ বলছেন, এসব স্রেফ মনোনয়ন টেকানোর কৌশল। তবে দলের শীর্ষ পর্যায়ে এসব তৎপরতা ইতিবাচক হিসেবেই গৃহীত হয়েছে বলে দাবি এমপি জগলুল হায়দারের।

এমপি জগলুল হায়দার তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে বলেন, 'সময় আজ মঙ্গলবার রাত ১২ টা। বাসায় শুয়ে বিশ্রাম করছি। হঠাৎ মোবাইল ফোনটি বেজে ওঠে। ফোন রিসিভ করে জানতে পারি শ্যামনগর উপজেলার নকিপুর গ্রামের আমির আলী গাজীর পরিবারের সদস্যরা খাবারের অভাবে অর্ধাহারে এবং অনাহারে খুব কষ্টে দিন কাটাচ্ছে। পরিবারটির জন্য মন কেঁদে ওঠে।

সংবাদ দাতাকে সেখানে অপেক্ষা করতে বলি এবং তাদের জন্য খাবার নিয়ে এখনই আসছি বলে জানাই। তারপর বাসা থেকে চাল, ডাল, তেল এবং পার্শ্ববর্তী ফার্ম থেকে মুরগী নিয়ে নিজে মোটরসাইকেল চালিয়ে রওনা হই। সেখানে পৌঁছে দেখি সংবাদ দাতা ছেলেটি আমির গাজীর বাড়ির সামনে আমার জন্য অপেক্ষা করছে। তাকে সাথে নিয়ে খাবারের ব্যাগ নিজে কাঁধে নিয়ে উক্ত বাড়িতে যাই এবং তাদেরকে ঘুম থেকে ডেকে তুলি। অসহায় পরিবারটির সদস্যদের কাছে খাবারগুলো দেই এবং নগদ আর্থিক সহায়তা করি।

তাদের জীর্ণ কুটির দেখে যতদ্রুত সম্ভব ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার জন্য কথা দেই। তাদের কাছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার জন্য দোয়া চাই। শুধু আজ বলে নয় বহু আগে থেকেই অসহায় মানুষের সেবা দিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি। আমার অজান্তে সংবাদ দাতা ছেলেটি সম্পূর্ণ ঘটনা তার মোবাইলে ধারণ করে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছেড়ে দেয়।'

apps