• রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮, ৪ ভাদ্র ১৪২৫
  • ||

আমার স্ত্রী-সন্তান আক্রান্ত হলে আসিফ দায়ী থাকবে: প্রিতম

প্রকাশ:  ০৯ জুন ২০১৮, ১০:৩৫
প্রীতম আহমেদ
প্রিন্ট

শিল্পীর আচরণ ও নাসা’র বিঙানী ও মাইক্রোসফট কর্মকর্তার পরিবারের সদস্য।

২০১৭ সালের ২ মে ঢাকার সি এম এম আদালতে মামলা করেছিলাম গ্রামীন ফোন, রবি, বাংলালিংক ও এয়ারটেল এর বিরুদ্ধে আমার লেখা সুর করা গানগুলো অনুমতিহীন বিক্রি করার অভিযোগে। এই মামলার অপরাধিরা ধরা পরলে আমার মত শত শত গীতিকার সুরকার তাদের প্রাপ্য অধিকার ফিরে পাবেন। বছরের পর বছর ধরে চলমান অন্যায় এর বিচার পাবেন দেশের অবহেলীত গীতিকার, সুরকার সমাজ। মামলার অভিযোগে কোথাও ভুলেও গায়ক আসিফ আকবরকে অভিযুক্ত করা হয়নি। তার পরও এক অজানা কারণে ঐ মামলার পর থেকে তিনি আমার ও আমার খুন হওয়া মৃত ভাইকে নিয়ে মিথ্যাচার, অনলাইনে ও ফেইসবুক লাইভে মিথ্যা অপপ্রচার, আমাকে মানসিক ভাবে অসুস্থ বলাসহ মামলা করার অপরাধে শায়েস্তা করা হবে ঘোষণা দেন। সেই দিন থেকে আজ পর্যন্ত ধারাবাহিক ভাবে তিনি এই নির্যাতন ও নিপীড়ন করেই চলেছেন। কখনো ফেইসবুক লাইভে এসে কখনো তার আসিফিয়ান নামের ফ্যানগ্রুপ দিয়ে। গত ২ মে ২০১৮ তিনি তার শেষ লাইভ ভিডিওতে আমি, আমার মা-বাবা ও স্ত্রী সন্তানদের নিয়েও কটুক্তি করেন যা অত্যন্ত কুরিচকর, অশ্লিল ও বানোয়াট।

একটি বিচারধীন মামলার বিপরীতে আইনি জবাব না দিয়ে আসিফ আকবর ফেইসবুক লাইভে মিথ্যা তথ্য দিয়ে আমাকে সমাজের কাছে খারাপ করার চেষ্টা ও অপদস্ত করা থামাননি। আমি এবারও তার এসব ব্যক্তিগত আক্রমণের জবাব দেবো না। ওরকম মন বা রুচিও আমার নেই। তাই বলে তার নির্দেশে তার সহচরদের দিয়ে আমি ও আমার পরিবারের প্রতি শারীরিক আক্রমণের আশংকা উড়িয়ে দেয়া যায় না। যে মানুষ ফেইসবুকে প্রকাশ্যে আমাকে মামলা করার কারণে শায়েস্তা করার হুমকি দিতে পারে রাতের আঁধারে নিশ্চয়ই তার রুপটা আরো ভয়ংকর হবে। তাই বলতে চাইছি, শিল্পীদের অধিকারের স্বার্থে মামলা করেছি বলে আমার ওপর কোন আক্রমণ হলে কোন দু:খ নেই। কিন্তু আমার পরিবার বা স্ত্রী সন্তান আক্রান্ত হলে তার দায় আসিফ আকবরকে নিতে হবেই।

- প্রীতম আহমেদ ৪ ছয় ২০১৮

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

আসিফ,প্রিতম