• শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫
  • ||

কারাগারে সাধারণ হাজতিদের ওয়ার্ডে ব্যারিস্টার মইনুল

প্রকাশ:  ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৭:৩৭ | আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৭:৩৯
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

কেরানিগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সাধারণ বন্দিদের সঙ্গে সাধারণ ওয়ার্ডেই রাখা হয়েছে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে। কারা কর্তৃপক্ষ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

মঙ্গলবার দুপুর তিনটা ১০ মিনিটে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে আদালত থেকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে কারাগারে সাধারণ ওয়ার্ডে সাধারণ বন্দিদের সঙ্গেই রাখা হয়েছে জানিয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুব আলম বলেন জানার জেলকোড অনুযায়ী তিনি কোনোধরনের ভিভিশন পাওয়া যোগ্য নাই। তাই নিয়মানুযায়ী তাকে (ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন) সাধারণ ওয়ার্ডেই রাখা হয়েছে।

রংপুরে দায়ের করা মানহানির মামলায় গতরাতে রাজধানী উত্তরে থেকে গ্রেফতারের পর মঙ্গলবার তাকে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে হাজির করা হয়। এ সময় তার পক্ষে আইনজীবীরা জামিনের আবেদন করে। দুপুর ২টার দিকে সিএমএম কোর্টের অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম কায়সারুল ইসলাম তার জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে দুপুর ১টার দিকে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কার্যালয় থেকে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে আদালতে তোলা হয়। রাজধানীর উত্তরায় জেএসডি নেতা আ স ম আবদুর রবের বাসা থেকে সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে তাকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশের একটি দল। আটকের পরপরই ব্যারিস্টার মইনুলকে গোয়েন্দা কার্যালয়ে নেওয়া হয়। সেখানে তাকে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম জানান, ব্যারিস্টার মইনুলকে রংপুর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করা মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সম্প্রতি একাত্তর টেলিভিশনের একটি টকশোতে লেখিকা-সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে ‘চরিত্রহীন’ বলে মন্তব্য করেন ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন। পরে তার ওই মন্তব্য নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে। এ ঘটনায় গতকাল সোমবার রংপুরে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে ১০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করেন মানবাধিকারকর্মী মিলি মায়া। তিনি রংপুর নগরীর মুলাটোল মহল্লার বাসিন্দা। এ মামলার আসামী হিসেবেই মইনুলকে কারগারে যেতে হচ্ছে।

লাইভ টিভিশো’র নারী অবমাননার দায়ে সাবেক তত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে এ পর্যন্ত অন্তত ৬টি মামলা দায়ের হয়েছে।

এনই/

ব্যারিস্টার মইনুল,মইনুল
apps