• রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫
  • ||

‘নির্বাচন বানচাল করার ক্ষমতা নেই বিএনপি-জামায়াতের’

প্রকাশ:  ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৫:২১
ভোলা প্রতিনিধি
প্রিন্ট

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বিএনপি বসে আছে তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে। তত্বাবধায়ক সরকার আর কোনো দিন আসবে না। ওদের যে স্বপ্ন তা স্বপ্নই থেকে যাবে। বিএনপি নেতারা বলছে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে নির্বাচন করবে। সেটা তারা বলতেই পারে। তবে খালেদা জিয়া দুর্নীতি মামলার আসামী হিসেবে বন্দি। কোর্ট যদি তাকে মুক্তি দেয় তাহলে দিবে, আর যদি মুক্তি না দেয় তাহলে আমাদের কিছু করার নাই। তবে নির্বাচনে তারা আসুক না আসুক নির্বাচন কিন্তু থেমে থাকবে না। বিএনপি-জাময়াতের এমন কোনো ক্ষমতা নাই যাতে তারা নির্বাচনকে বানচাল করতে পারে। নির্বাচন হবে বর্তমান ক্ষমতাশীন দলের অধীনে। নির্বাচন পরিচালনা করবে নির্বাচন কমিশন।

সোমবার (২০ আগস্ট) দুপুরে ভোলা সদর উপজেলার ঘুইংগারহাট বাজারে উত্তর দিঘলদী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত পথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচন বানচাল করার জন্য বিএনপি-জামায়াত পুলিশ মেরেছে, বিজেপি মেরেছে, নির্বাচনের বুথ পুরিয়ে দিয়েছে কিন্তু তারা তা পারে নাই। খালেদা জিয়া আবার ৯৩ দিন হরতাল-অবরোধের নামে দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংশ করেছে। তিনি বলেছিলো শেখ হাসিনার পতন না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাবে না। শেখ হাসিান প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আর বেগম খালেদা জিয়া এখন জেল খানায়। সুতরাং বিএনপি যদি নির্বাচনে অংশ না নেয় তাহলে সেটা হবে তাদের জন্য রাজনৈতিক আত্মহত্যার সামিল। আওয়ামী লীগের এ প্রবীন নেতা বলেন, ২০০১ সালের নির্বাচনের পড়ে ভোলায় অমানুষিক নির্যাতন হয়েছে। মানুষের গরু পর্যন্ত পুড়িয়ে দিয়েছে। ভোলায় এমন কোনো আওয়ামী লীগ নেতকর্মী ছিলো না যাদের অত্যাচার করেনি বিএনপি। তারা যদি আবার ক্ষমতা পায় বাংলাদেশে লক্ষ লক্ষ লোক হত্যা করবে।

এসময় বাণিজ্যমন্ত্রী সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে আগামী নির্বাচনে আবারও আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় এনে উন্নয়ন অব্যাহত রাখার আহবান জানান।

পথ সভায় উত্তর দিঘলদী ইনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. খোরশেদ মাতাব্বরের সভাপতিত্বে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোশারেফ হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইউনুছ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জহুরুল ইসলাম নকিব, এনামুল হক আরজু, সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব উপস্থিত ছিলেন।

পরে বিকেলে বাণিজ্যমন্ত্রী সদর উপজেলার আলী নগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত আরও একটি পথ সভায় অংশগ্রহণ করেন।

ওএফ

তোফায়েল,মন্ত্রী