• শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫
  • ||

‘যমজ’ কার? দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে

প্রকাশ:  ১৯ আগস্ট ২০১৮, ২০:২০ | আপডেট : ১৯ আগস্ট ২০১৮, ২০:৫৩
মাকসুদুল হক ইমু
প্রিন্ট

আসন্ন ঈদকে কেন্দ্র করে উৎসবের রঙে সেজেছে ছোটপর্দা। দর্শক বিনোদনের প্রধান আকর্ষণ হিসেবে গুরুত্ব পেয়েছে ঈদ নাটক ও টেলিফিল্ম। এই উৎসবে শত শত নাটকের ভিড়ে প্রিয় অভিনেতার নাটককেই খুঁজে নেন সর্বস্তরের মানুষ। গেল কিছু বছরের ঈদের অনুষ্ঠানমালায় বাড়তি আনন্দ যোগ করেছে অনিমেষ আইচের রচনায় আজাদ কালামের পরিচালনা ও অভিনেতা মোশাররফ করিমের অভিনীত নাটক ‘যমজ’। এবার সেই যমজ নাটকের গল্প ভাবনা বা রচয়িতা অনিমেষ আইচকে বাদ দিয়েই নাটকের শ্যুটিং করে ফেলেছেন নির্মাতা। এদিকে বিষয়টি নিয়ে বেশ ক্ষেপেছেন শোবিজের পরিচিত মুখ অনিমেষ আইচ। সাথে বেশ কিছু কথার উত্তর দিয়েছেন অভিনেত্রী আসনা হাবীব ভাবনা।

অনিমেষ আইচ বিষয়টি নিয়ে তার ফেসবুকেও লিখেছেন। অনিমেষ তাঁর সেই পোষ্টে লিখেন, “হঠাৎ করেই শুনলাম যমজ নাটকটির স্যুটিং হচ্ছে। যার ৯ টি পর্ব আমার হাত দিয়ে লেখা।আমার লেখা নাটক যেটা বর্তমান বাংলাদেশ নাটকের অন্যতম জনপ্রিয়। যার ইউটিউব ভিউয়ার প্রত্যেকটি পর্বের ৫০ থেকে ৭০ লক্ষের উপরে। আমি জানি বাংলাদেশের সাধারন মানুষ এই নাটকটি নিয়ে কি পরিমান উচ্ছসিত । মোশারফ করিম অসাধারন ৩ টি চরিত্র অভিনয় করেছেন সেই নাটকে। সেটা কি শুধু মাত্র মোশারফ করিমের একক কৃতিত্ব, নাকি পরিচালক আজাদ কালাম নাকি টিভি ষ্টেশনের?

জানি না !!!!

তারা অত্যন্ত গোপনীয়তার সঙ্গে স্যুটিং করছেন। কোথাও কাউকে কিছু জানাচ্ছেন না। ধরি, আমি হুমায়ূন আহমেদের একজন ফ্যান কিংবা ঘনিষ্ঠ ব্যক্তি। আমি চাইলেই কি হিমু কিংবা মিসির আলি সিরিজের নতুন লেখা লিখে নির্মান করতে পারবো?

‘যমজ’ নাটক নিয়ে এই কদর্যতা আমি ভীষণ অপচ্ছন্দ করলাম”।

অনিমেষ আইচের এই ষ্ট্যটাসের নিচে কমেন্টস করেছেন নির্মাতা মোস্তফা সরওয়ার ফারুকী, তিনি লিখেছেন, এটা খুব খারাপ হয়েছে। এজন্যই তোমার উচিত ছিল তোমার নিজের কাজ কপিরাইট অফিসে গিয়ে কপিরাইট নেয়া।

এদিকে অনিমেষের এই কথার পর সেখানে কমেন্টস করেছেন জমজ নির্মাতা আজাদ কালাম, তিনি লিখেছেন, অনিমেষ একবার বলুক মূল গল্প ভাবনা কার? সে মরে গেলেও মিথ্যা কথা বলবে না। আমি চাই অনিমেষ একবার বলুক, ক্লিয়ার করুক জমজ এর মূলগল্প ভাবনা কার। তখন অভিযোগ মাথা পেতে নিবো।

আজাদ কালামের এই মন্তব্যের নিচে অভিনেত্রী আসনা হাবীব ভাবনা লিখেছেন, আজাদ কালাম ভাই মূল ভাবনা আমি তো ভাবলাম মোশারফ করিমের। শুধু শুধু আমিমেষকে দিয়ে লিখালেন কেন? ভাবনা আরো লিখেন, আজাদ কালাম ভাই আনিমেষ আইচ আপনার জন্য কি তা সবার চেয়ে ভালো আপনি জানেন। আর অনিমেষ মিথ্যা কথা তো দূরের কথা রাত তিনটায় রং সাইড দিয়েও গাড়ি চালায় না সেই টাইপের মানুষ। আর হ্যা অনিমেষের টাকার লোভ নাই। আপনি একজন কাছের মানুষ হারালেন। যেখানে পুরো ইন্ড্রাষ্ট্রী আপনার কাছে টাকা পায়, আপনার নামে বাজে কথা বলে, অনিমেষ সেখানে টাকা ছাড়াও আপনাকে স্ক্রীপ্ট দিয়ে থাকে। মানুষ হওয়া বড় কঠিন।

অনিমেষের স্ট্যাটাসে নির্মাতা বদরুল আনাম সৌদ বিষয়টি নিয়ে অনিমেষ আইচকে নাট্যনির্মাতাদের সংগঠন ডিরেক্টরস গিল্ডের সাথে যোগাযোগ করতে বলেছেন।

বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকের ষ্ট্যাটাসে আরও কথা বলেছেন অভিনেতা শতাব্দী ওয়য়াদুদ, অভিনেত্রী ফারজানা চুমকি, ইলোরা গহর, রোজী সিদ্দিকী, ইন্তেখাব দীনার সহ আরও অনেকে।

বিষয়টি নিয়ে কথা পূর্বপশ্চিমের সাথেও কথা বলেছেন নির্মাতা অনিমেষ আইচ নিজেও। তিনি বলেন, “আমিতো বিগত সাত আট বছর ধরে জমজ লিখছি। এই নাটকের কনসেপ্ট থেকে শুরু করে লিখা আমার। আমাকে বাদ দিয়ে যদি এটা অন্য কাউকে দিয়ে লিখাতে হয় এতে আমার পারমিশন নিতে হবে তো। আমি তো ২০ বছর ধরে মিডিয়াতে এখানে কালাম ভাই তো সেদিন এসেছেন। আর এখন আরটিভি দাবী করতে পারে যমজ তাদের। কিন্তু আগে এর প্রমোশন তো অন্য চ্যানেলেও হয়েছে। মূলত কালাম ভাই একটা ঘৃণিত অপরাধ করেছেন। শুধু কালাম ভাই না এই প্রোডাকশনের সাথে জড়িত প্রযোজক, অভিনেতা, চিত্রনাট্যকার সহ সকলের নামই এখানে আসবে। আমি তো এখানে অপরিচিত কেউ না, আমাকে একটাবার ফোন দিয়ে বললেই হতো। এটার গোপনে কেন শ্যুটিং করতে হবে। আমি ইতোমধ্যেই ডিরেক্টর গিল্ডের কাছে কথা বলেছি। অভিযোগপত্র পাঠানো হয়েছে। আমি এটা নিয়ে মামলাও করবো। ঈদের কারণে যেহেতু এখন পারছিনা আমি অবশ্যই মামলা করবো। আমি আসলেই এটার বিরুদ্ধে প্রচুর প্রতিবাদ জানাই”। এসময় তিনি আরও বলেন, এটা শুধু আমার কারণে না, এখন অনেক তরুণ লেখক আছে তাদের সাথে যাতে ভবিষ্যতে এমন কিছু না হয় বা মেধাসত্ব যাতে কেউ হরণ না করতে পারে তার জন্য আমি এই কাজটি করছি।

এদিকে এবারের যমজ-১০ নাটকটির পরিচালক আজাদ কালাম থাকলেও এবার মোশারফ করিমের গল্পে নাটকটির চিত্রনাট্য করেছেন মেজবাহ উদ্দিন সুমন।

যমজ