• সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫
  • ||

হজের প্রথম ফ্লাইট শনিবার, সব প্রস্তুতি সম্পন্ন

প্রকাশ:  ১২ জুলাই ২০১৮, ১৭:৪০
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

চলতি বছর হজ যাত্রী নিয়ে প্রথম ফ্লাইট আগামী শনিবার (১৪ জুলাই) সৌদি আরবের উদ্দেশে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়ে যাবে। সুষ্ঠভাবে হজ ফ্লাইট পরিচালনার সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে উল্লেখ করে বিমান মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সৌদি আরবের সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষের দেওয়া শর্তে বাংলাদেশের হজ ফ্লাইট পরিচালনায় জটিলতা তৈরি হবে না।

বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) সচিবালয়ে বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. মহিবুল হক সাংবাদকিদের কাছে হজ ফ্লাইট পরিচালনার বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরে এ কথা জানান।

তিনি বলেন, হজ ফ্লাইট পরিচালনার জন্য বাংলাদেশ বিমানের নিজস্ব তিনটি ফ্লাইট রয়েছে। যে ফ্লাইটগুলো গত তিন বছর সৌদিতে অপারেট করেছে। তবে, হজযাত্রী পরিবহনের জন্য যে দুইটি বিমান লিজ নেওয়া হয়েছে, সেই দুইটি বিমানের তিন বছরের অভিজ্ঞতা নেই। সেক্ষেত্রে এই দুইটি বিমান হয়তো আটকে যাবে। এ সমস্যা নিরসনে সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সৌদি সরকারের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন। আশা করছি—আজকের দিনের মধ্যেই আমরা সৌদি সরকারের কাছ থেকে ইতিবাচক সমাধান পাবো। কাজেই হজযাত্রীদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনও কারণ নেই।’

এবারের হজের আগে সৌদি আরবের সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ শর্ত দিয়েছে লিজ বা ভাড়ায় সংগ্রহ করা কোনও বিমান দিয়ে সেদেশে ফ্লাইট পরিচালনা করা যাবে না। এ কারণে হজের মৌসুমে সৌদি আরবের সব রুটে টিকিট বিক্রি বন্ধ রেখেছে বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। এর আগে এ বছর পূর্বনির্ধারিত হজ ফ্লাইটের বাইরে নতুন করে হজ ফ্লাইটের স্লটের অনুমতি দেবে না বলে জানায় সৌদি আরব। বিশ্বের সব দেশের জন্য এই শর্ত দিয়েছে সৌদি আরব।

এ প্রসঙ্গে ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. মহিবুল হক জানান, যদি লিজে নেওয়া বিমান দুইটি পরিচালনার ক্ষেত্রে সৌদি আরব সরকারের অনুমতি না পাই, তাহলে আমাদের নিজস্ব বিমান দিয়ে হজযাত্রীদের পূর্ব শিডিউল মোতাবেক সৌদি আরবে পাঠানো সম্ভব হবে; তাতেও কোনও সমস্যা হবে না।

তিনি আরো জানান, এ বছর সৌদি সরকার বাংলাদেশকে বাড়তি কোনও স্লট দেবে না, এটি আগেই জানানো হয়েছে। কাজেই সব হজযাত্রীকে আগে-ভাগে বিমানের টিকিট সংগ্রহ করে রাখার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে। সময়মতো টিকিট সংগ্রহ না করার কারণে যদি কোনও হাজি হজে যেতে সমস্যায় পড়েন, তাহলে হয়তো মন্ত্রণালয়ের কিছু করার থাকবে না।

সচিব বলেন, যেসব জটিলতায় গত বছর ২৪টি ফ্লাইট বাতিল হয়েছিল, এ বছর আশা করছি-চারটি ফ্লাইটও বাতিল হবে না। কারণ, গত বছর এই সময়ের মধ্যে সাত হাজার হজযাত্রী টিকিট সংগ্রহ করেছিলেন। কিন্তু এ বছর একই সময় ৫১ হাজার হজযাত্রী তাদের নিজ নিজ টিকিট সংগ্রহ করেছেন।

হজক্যাম্প সূত্রে জানা গেছে, এবছর বাংলাদেশ থেকে মোট ১ লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জন হজ পালন করতে সৌদি আরব যাবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন ৬ হাজার ৭৯৮ জন আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন ১ লাখ ২০ হাজার। এর মধ্যে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫২৮টি হজ এজেন্সি হজের কার্যক্রম পরিচালো করছে। যাত্রীদের বহনের জন্য আগেই ঠিক করে রাখা হয়েছে বাংলাদেশ বিমান ও সৌদি এয়ার লাইনস। এর মধ্যে বিমান বাংলাদেশ ১৮৭টি ফ্লাইটে ৬৪ হাজার ৯৬৭ জন এবং সৌদি এয়ারলাইনসের ১৮৮টি ফ্লাইটে ৬১ হাজার ৮৩১ জন যাত্রী পরিবহন করবে।

প্রসঙ্গত, শনিবার সকাল ৭টা ৫৫ মিনিটে ‍বিমান বাংলাদেশের একটি ফ্লাইটে ৪১৯ জন যাত্রী নিয়ে সৌদি আরবের উদ্দেশ্যে যাত্রা করবে। প্রথমদিন বিমানের চারটি হজ ফ্লাইট ঢাকা ছাড়বে। আগামী ১৫ আগস্ট চলবে হজ ফ্লাইট। ফিরতি হজ ফ্লাইট শুরু হবে ২৭ আগস্ট থেকে। ২৫ সেপ্টেম্বর শেষ ফ্লাইট ঢাকায় ফিরবে।

হজ ফ্লাইট
apps