• রবিবার, ২২ জুলাই ২০১৮, ৭ শ্রাবণ ১৪২৫
  • ||

ইরানকে হারিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডের পথে স্পেন

প্রকাশ:  ২১ জুন ২০১৮, ০২:০৪ | আপডেট : ২১ জুন ২০১৮, ০২:১৮
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট

এশিয়ার দলটি প্রথমার্ধে সফলভাবেই আটকে দিয়েছিল স্প্যানিয়ার্ডদের। দ্বিতীয়ার্ধেও সে আভাসই দিচ্ছিল। তবে তারা হেরে গেল স্ট্রাইকার দিয়েগো কস্তার সামনে। ম্যাচের ৫৪ মিনিটে তার গোলই এগিয়ে দিয়েছে স্প্যানিয়ার্ডদের। ম্যাচের সর্বশেষ স্কোর, স্পেন ১-০ ইরান। তবে ৬২ মিনিটে গোল করে ম্যাচে উত্তেজনা ফিরিয়েছিল ইরান। কিন্তু ভিএআর ব্যবহার করে হ্যান্ডবল হওয়ার কারণে রেফারি গোলটি বাতিল করে দেন।ইরানের বিপক্ষে জয় পেয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডের পথে এগিয়ে গেল স্পেন। স্প্যানিশরা গ্রুপ পর্বে তাদের বাকি ম্যাচটি খেলবে মরক্কোর বিপক্ষে। এই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৫ জুন। আজ পর্তুগালের কাছে হেরে বিদায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে মরক্কোর।

প্রথমার্ধে আক্রমণ পাল্টা আক্রমণ করেও কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পাননি দু'দল। বল দখলে অনেক এগিয়ে ছিল স্পেন।তারা টার্গেটে শট নিতে পেরেছে মাত্র একটি। কিন্তু ইরান টার্গেটে একটি শটও নিতে পারেনি। প্রথমার্ধে ইরান পুরোপুরি রক্ষণাত্মক খেলেছে। এর আগে কখনো মুখোমুখি হয়নি দুই দল। বিশ্বকাপেই প্রথম দেখা । ‘বি’গ্রুপের প্রথম ম্যাচে পর্তুগালের বিপক্ষে ৩-৩ গোলের রোমাঞ্চকর ড্র করে স্পেন। গ্রুপের অপর খেলায় ইনজুরি সময়ের আত্মঘাতী গোলে মরক্কোকে ১-০ ব্যবধানে হারায় ইরান। রাত ১২টায় ইরানের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মাঠে নামে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন স্পেন ।

ইরানের বিপক্ষে ফেভারিট হিসেবেই মাঠে নামবে ২০১০ বিশ্বকাপ জয়ী স্পেন। স্পেন কোচ হেইরো বলেন, ‘জার্মানির সঙ্গে যা ঘটেছে তা যে কারো সঙ্গে হতে পারে।বিশ্বকাপের ৩২টি দলই খুব ভালো। প্রথম ম্যাচটা সবসময়ই কঠিন হয়। আমরা ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে ১ পয়েন্ট পেয়েছি।এখন আমাদের প্রতিপক্ষ ইরান...।’ ফিটনেস সমস্যা কাটিয়ে ইরানের বিপক্ষে একাদশে ফিরতে পারেন রাইটব্যাক দানি কারভাহাল।

টানা ২১ ম্যাচ অপরাজিত থাকা স্পেনের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে ইরানের ডিফেন্স। প্রথম এশিয়ান দল হিসেবে বিশ্বকাপে নাম লেখানো ইরান বাছাইপর্বের ১৮ ম্যাচেই অপরাজিত থাকে। মাত্র ৫ গোল হজম করে তারা। ইরানের দায়িত্বে আছেন অভিজ্ঞ পর্তুগিজ কোচ কার্লোস কুইরোজ। প্রথম ম্যাচে তার কৌশল হতাশ করে উত্তর আফ্রিকার মরক্কোকে। স্পেনকে মানসিকভাবে চাপে রাখতে ভিন্ন উপায় প্রয়োগ করতে চান কুইরোজ, ‘স্পেনের বিপক্ষে গোলরক্ষক থেকে শুরু করে স্ট্রাইকার অবদান রাখবে। তাই আমাদের ভিন্ন কৌশল ভাবা দরকার।

স্প্যানিশদের জন্য হুমকি হতে পারেন সারদার আজমাউন। রুবিন কাজানের হয়ে রুশ লিগ খেলা এই ফুটবলার এরই মধ্যে খ্যাতি পেয়েছেন ‘ইরানের মেসি’ হিসেবে। আর কাজানের মাঠে খেলার অভিজ্ঞতা বাড়তি সুবিধা দেবে তাকে। তার ওপর প্রথম ম্যাচের জয়ে উজ্জীবিত ইরান মানসিক ভাবে থাকবে অনেকটাই ফুরফুরে। ইসকো, ডিয়েগো কোস্তা, দাভিদ সিলভারা কিছুটা চাপ নিয়েই মাঠে নামবেন। তবে সেই চাপ সামলানো খুব একটা কঠিন হবে না ফর্মের তুঙ্গে থাকা স্প্যানিয়ার্ডদের জন্য। /এস কে