• সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫
  • ||

পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে অর্থ দিচ্ছে চীন

প্রকাশ:  ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ২১:২০ | আপডেট : ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ২১:২৩
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট

নির্মাণাধীন পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রথমবারের মতো একটি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের অর্থায়ন নিশ্চিত হয়েছে। পটুয়াখালীর পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য এই অর্থায়ন নিশ্চিত করেছে চীনের এক্সিম ব্যাংক।

সোমবার (১৬ এপ্রিল) এক্সিম ব্যাংককে ৪৩ কোটি মার্কিন ডলারের চাহিদাপত্র (ইনভয়েস) পাঠিয়েছে বাংলাদেশ চায়না পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড (বিসিপিসিএল)।বড় বিদ্যুৎকেন্দ্রেগুলোর মধ্যে প্রথম পায়রা ১ হাজার ৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের অর্থ দেশে আসছে।

বিসিপিসিএল-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এ এম খোরশেদুল আলম বলেন, ‘আজই (সোমবার) ৪৩ কোটি ডলারের ইনভয়েস আমরা এক্সিম ব্যাংককে পাঠিয়েছি।পর্যায়ক্রমে বাকি অর্থ ছাড় করবে চীন।’ তিনি বলেন, ‘এক্সিম ব্যাংক বিদ্যুৎকেন্দ্রটি নির্মাণে ১৯৮ কোটি ডলার ঋণ সহায়তা দেবে।এই ঋণের অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে দেশে আসবে।

এ জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী ১৭টি হিসাব (একাউন্ট) খোলা হয়েছে।যার মধ্যে নয়টি হিসাব ইউএসডি একাউন্ট (ফরেন কারেন্সি একাউন্ট) রয়েছে। চীনা এক্সিম ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংক হিসাবে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক কাজ করছে। সব একাউন্ট স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকেই খোলা হয়েছে।’

বিসিপিসিএল সূত্র জানায়, এরইমধ্যে বিদ্যুৎকেন্দ্রটির ৩৮ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে।বর্তমানে বিদ্যুৎকেন্দ্রটির অবকাঠামো নির্মাণ কাজ চলছে।আগামী জুলাই থেকে কেন্দ্রের যন্ত্রাংশ বাংলাদেশে আসবে।আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল প্রযুক্তির বিদ্যুৎকেন্দ্রটির প্রথম ইউনিট উৎপাদনে আসবে ২০১৯ সালের জুন মাসে। দ্বিতীয় ইউনিট উৎপাদনে আসবে একই বছরের ডিসেম্বরে।নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই কেন্দ্রটি উৎপাদন আসবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

বিদ্যুৎকেন্দ্রটির সমান অংশীদারিত্ব রয়েছে দেশীয় কোম্পানি নর্থ ওয়েস্ট পাওয়ার কোম্পানি (এনডব্লিউপিজিসিএল) এবং চীনা কোম্পানি চায়না ন্যাশনাল মেশিনারি ইমপোর্ট অ্যান্ড এক্সপোর্ট করপোরেশন (সিএমসি)। কেন্দ্র নির্মাণে ২০ ভাগ অর্থ রাষ্ট্রীয় কোম্পানি বিনিয়োগ করছে। বাকি ৮০ ভাগ ঋণ দিচ্ছে চায়না এক্সিম ব্যাংক।সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন