• রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫
  • ||

‘মানুষ জাতীয় পার্টিকে আবারও ক্ষমতায় দেখতে চায়’

প্রকাশ:  ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ২১:১৮ | আপডেট : ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ২১:৪৬
লালমনিরহাট প্রতিনিধি
প্রিন্ট

সাবেক রাষ্ট্রপ্রতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, বাল্য বিয়েতে আমরা এক নম্বর। কারণ মানুষ বাপ মরা মেয়েকে ঘরে রাখতে পারে না। তার কারণ হল আওয়ামী লীগের লোকজন ধর্ষণ করে ছবি তোলে। পুলিশ মামলা নেয় না।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) সন্ধ্যার আগে লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার কুমড়িহাট এসসি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জাতীয় পার্টি আয়োজিত জনসভার প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ আরও বলেন, মানুষ জন জাতীয় পার্টিকে আবারও ক্ষমতায় দেখতে চায়। সে কারণে আদিতমারী উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামের জাতীয় পার্টির জনসভায় আজ লক্ষ লক্ষ লোক উপস্থিত হয়েছে। এজন্য আমি অবিভূত, আনন্দিত।

জনসভা উপস্থিত হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘হিন্দু ভাইরা। আমার সময় কোন মন্দির ভাংচুর হয়নি। আপনারা সুখে ছিলেন, শান্তিতে ছিলেন, নিরাপদে ছিলেন। এবার আমি আপনাদের হিন্দুদের জন্য ৩০ টি আসন রিজার্ভ (সংরক্ষিত) করেছি।’

তিনি আরও বলেন, সংসদে মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত আসন আছে। তাই এবার হিন্দুদের জন্যও আমরা ৩০ টি আসন দিবো। তাই আগামি জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় আনতে হিন্দু সম্প্রদায়কে লাঙ্গল মার্কায় ভোট দিতে হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

দেশে জাতীয় পার্টিও জোয়ার এসেছে উল্লেখ করে সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ বলেন, আমরা ১ লক্ষ ভোটের ব্যবধানে রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জিতেছি। এটা একটি ইতিহাস। আর এমন ইতিহাস দেশে জাতীয় পার্টি ছাড়া অন্যকোন দল করতে পারবে না ।

তিনি আরও বলেন, রংপুরের পর গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জেও জাতীয় পার্টি ভোটে জয়ী হয়েছে। আজ আদিতমারী এসে দেখছি জাতীয় পার্টির এই জনসভায় প্রায় দুই লক্ষ মানুষ জনসভায় উপস্থিত হয়েছে। এতসব মানুষ দেখে সত্যিই আজ এমন লাগছে যে, আমার বয়স যেন ৯৪ থেকে ৪০ বছরে নেমে এসেছে।”

লালমনিরহাট জেলার ৩ টি সংসদীয় আসনই জাতীয় পার্টির ছিলো এবং আগামিতেও আবারও জাতীয় পার্টির থাকবে উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, এই জেলার তিনটি আসনের জন্যই আমরা আগামি নির্বাচনের প্রার্থী ঠিক করেছে। তারা হলেন লালমনিরহাট-১ (হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম) আসনে মেজর (অবঃ) খালেদ আখতার, লালমনিরহাট-২ ( আদিতমারী-কালীগঞ্জ) আসনে রোকন উদ্দীন বাবুল এবং লালমনিরহাট-৩ (সদর) আসনে আমার ভাই গোলাম মোহাম্মদ কাদের জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবে।

আমার বাড়ি রংপুরে উল্লেখ করে এইচএম এরশাদ বলেন, ‘এই লালমনিরহাটকে আমি জেলা করেছি। জাতীয় পার্টির আমলে এখানকার যে উন্নয়ন হয়েছে তা আর কেউ করতে পারেনি। তাই আজ এখানরকার রাস্তায় গাছে গাছে শুধু এরশাদ আর লাঙ্গলের ছবি দেখতে পেয়ে আমি খুবেই খুশি।

আদিতমারী উপজেলা জাতীয়পার্টির সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই জনসভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জাতীয়পার্টির কো-চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী গোলাম মোহাম্মদ কাদের, এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী ও পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ্ব মশিউর রহমান রাঙ্গা এমপি, রংপুর সিটি কর্পোরেশন মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক ও লালমনিরহাট- ২ (আদিতমারী-কালীগঞ্জ) আসনের জাতীয়পার্টি মনোনীত প্রার্থী রোকন উদ্দীন বাবুল প্রমূখ।

প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা তার বক্তব্যে বলেন, দুই দলের একই বীষ নৌকা আর ধানের শীষ। তাই লাঙ্গল ছাড়া উপায় নেই। আসুন আমরা সবাই লাঙ্গলে ভোট দিয়ে সরকার গঠন করি।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মেজর মোঃ খালেদ আখতার (অবঃ), চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক উপদেষ্টা ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী এমপি।

এর আগে জনসভার প্রথম ভাগে স্থানীয়দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, লালমনিরহাট জেলা জাতীয় পার্টিও যুগ্ম সম্পাদক মোকলেছুর রহমান টুকু, আদিতমারী উপজেলা জাতীয় পার্টিও সিনিয়র সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন সরকার, শ্রমীক পার্টির নেতা আফজাল হোসেন, লালমনিরহাট জেলা যুব সংহতির আহবায়ক গোলাম মোস্তফা, আদিতমারী উপজেলা সেচ্ছাসেবক পার্টির আহবায়ক মির্জা সেলিম, কালীগঞ্জ উপজেলা সেচ্ছাসেবক পার্টিও আহবায়ক আব্দুস সামাদ, কৃষক পার্টির সভাপতি আব্দুল কাদের মাস্টার, উপজেলা ছাত্র সমাজের সভাপতি মোসলেম উদ্দিন লিটন, যুগ্ম সম্পাদক রাজ্জাকুল ইসলাম রাজ্জাক প্রমূখ।

এদিকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানকে অভ্যার্থনা জানাতে আদিতমারী-কালীগঞ্জ সংসদীয় এলাকার ভোটমারী এলাকায় সোমবার দুপুর থেকে কয়েক হাজার মোটর সাইকেলসহ জাতীয়পার্টি এবং অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতারা সমবেত হয়। সেখান থেকে বিকেল বিশাল একটি মোটরসাইকেলের বহর জাতীয়পার্টির চেয়ারম্যানকে জনসভাস্থলে নিয়ে আসে।

ওএফ