• সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ৬ ১৪২৫
  • ||
  • আর্কাইভ

বিচারের মুখোমুখি হচ্ছেন নেতানিয়াহু

প্রকাশ:  ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১২:১২ | আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১২:১৫
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট

ইসরায়েলের পুলিশ বলছে, দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেনজামিন নেতানিয়াহুকে ঘুষের মামলায় অভিযুক্ত করা হবে। পুলিশের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে দু’টি পৃথক দুর্নীতির মামলায় ঘুষ, জালিয়াতি এবং বিশ্বাস ভঙ্গের যথেষ্ট প্রমাণ পাওয়া গেছে। খবর বিবিসি।

ইসরায়েলি টেলিভিশনের কাছে দেয়া এক সাক্ষাতকারে নেতানিয়াহু বলেছেন, এ ধরনের অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই এবং তিনি প্রধানমন্ত্রী হিসেবেই ক্ষমতায় থাকবেন। তিনি জানিয়েছেন, পুলিশের এমন অভিযোগে কিছুই হবে না। সব কিছু স্বাভাবিকভাবেই শেষ হবে।

এক মামলায় অভিযোগ উঠেছে যে, নেতানিয়াহু ইসরায়েলি ইয়েদিওত আহারোনোত পত্রিকার প্রকাশক আরনোন মোজেসকে ঘুষ দিয়ে ইতিবাচক সংবাদ প্রকাশের চেষ্টা করেছিলেন। এর বিনিমেয়ে তিনি ওই সংবাদপত্রের একটি প্রতিদ্বন্দ্বী পক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন।

পুলিশ জানিয়েছে, আরনোন মোজেসকেও বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। আরও একটি অভিযোগ অনুযায়ী, ২০০৯ সালে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন সময়ে হলিউডের মোগুল আরনোন মিলচান এবং আরও বেশ কয়েকজন সমর্থকের কাছ থেকে ঘুষ হিসেবে কমক্ষে ২ লাখ ৮৩ হাজার ডলার মূল্যের উপহার সামগ্রী গ্রহণ করেছেন নেতানিয়াহু।

জেরুজালেম পোস্টের এক খবরে বলা হয়েছে, শ্যাম্পেন এবং সিগারেটসহ বেশ কিছু মূল্যবান জিনিসও উপহার হিসেবে নিয়েছেন নেতানিয়াহু। পুলিশ জানিয়েছে, মোগুল আরনোন মিলচানকেও ঘুষের মামলায় বিচারের মুখোমুখি হতে হবে।

পুলিশ জানিয়েছে, অস্ট্রেলিয়ার ধনকুবের ব্যবসায়ী জেমস প্যাকারের দায়ের করা একটি মামলায় নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে জালিয়াতি এবং বিশ্বাস ভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়েছে। ইসরায়েলের চ্যানেল ১০-য়ের এক খবরে বলা হয়েছে, গত বছরের ডিসেম্বরে প্যাকার তদন্তকারীদের জানিয়েছেন যে, তিনি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু এবং তার স্ত্রী সারাকে উপহার দিয়েছেন।

বিভিন্ন মামলায় নেতানিয়াহুকে কমপক্ষে সাতবার জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন তদন্তকারীরা। নেতানিয়াহুকে বিচারের মুখোমুখি করা হবে কিনা সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাঠানো হবে। কয়েক মাসের মধ্যেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।