• শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮, ৩ ভাদ্র ১৪২৫
  • ||

সাড়া ফেলেছে তেলেগু ভাষার ‘আয়নাবাজি’ও

প্রকাশ:  ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০১:৫৫ | আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০১:৫৭
বিনোদন ডেস্ক
প্রিন্ট

২০১৬ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে মুক্তি পেয়েছিল চঞ্চল চৌধুরী অভিনীত ও অমিতাভ রেজা পরিচালিত অপরাধধর্মী থ্রিলার চলচ্চিত্র ‘আয়নাবাজি’। যে ছবির মূল চরিত্র চঞ্চল চৌধুরী একাই ছয়টি চরিত্রে অভিনয় করে রীতিমত সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন। ছবিতে তার চরিত্রটির নাম ছিল শরাফত করিম আয়না। বাংলাদেশে ব্যাপক প্রশংসা কুড়ানো সে ছবি এবার মুক্তি পেল তেলেগু ভাষায়।

নাম পাল্টে ছবিটি মুক্তি পেয়েছে ‘গায়ত্রী’ নামে। নতুন এ সংস্করণে ছবিটির মূল চরিত্র চঞ্চল চৌধুরীর স্থানে রয়েছেন তেলেগু অভিনেতা মোহন বাবু। গত ৯ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ ভারতে ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পর সেখানেও দর্শকদের মাঝে এই চরিত্রটি নিয়ে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। ভাষা আর অভিনেতা-অভিনেত্রী পরিবর্তন হলেও নতুন ছবির এ সংস্করণে গল্পের প্রেক্ষাপট একই রাখা হয়েছে।

রিমেক এই ছবিতে মোহন বাবু বিপত্নীক। তার যুবতী একটি মেয়ে রয়েছে এবং তিনি মঞ্চ অভিনেতা। অর্থের বিনিময়ে তিনি বিভিন্ন অপরাধী চরিত্রের রুপ ধারণ করেন এবং তাদের হয়ে জেল খাটেন। এখানে বাবা ও মেয়ের আবেগের এক অসাধারণ রসায়ন ফুটে উঠেছে। আর ছবিটির প্রতিটি ধাপেই টানটান উত্তেজনা বোধ করেছেন দর্শকরা। যা ভারতের তেলেগু ভাষাভাষী মানুষকে দিয়েছে সত্যিকারের এক রহস্যময় চরিত্রকে দেখার সুযোগ।

তেলেগু সংস্করণে ‘আয়নাবাজি’র সাফল্যের বিষয়ে ছবিটির প্রযোজক গাউসুল আলম শাওন বলেন, ‘এতোদিন ধরে শুধু শুনেছি আমরা ভারতীয় সিনেমার আদলে সিনেমা বানাই। কিন্তু এবার আমাদের সিনেমার গল্প নিয়ে তারা সিনেমা বানালো। এটা বাংলাদেশি সিনেমার জন্য একটা নতুন মাইলফলক।’

বাংলাদেশে ‘আয়নাবাজি’র সফলতার পর ভারতীয় চলচ্চিত্র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শ্রী লক্ষ্মী প্রসন্ন পিকচার্স ২০১৭ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে তামিল ও তেলেগু ভাষায় ছবিটি নির্মাণের জন্য এর স্বত্ব কিনে নেয়। এরপর ‘গায়ত্রী’শিরোনামে তারা ছবিটি পুনরায় নির্মাণ করে। এটি পরিচালনা করেছেন ম্যাডান রামিজানি। কপিরাইট কিনে নিলেও ‘আয়নাবাজির ছায়া থেকে নতুনভাবে ‘গায়ত্রী’ছবিটির চিত্রনাট্য করেছেন ডায়মন্ড রত্ন বাবু।