• শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১১ ১৪২৫
  • ||
  • আর্কাইভ

হাসপাতালে শুয়ে যা বললেন বনানী গণধর্ষণের শিকার মেয়েটি

প্রকাশ:  ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৯:১৯ | আপডেট : ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৯:২৬
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

ফোনে পরিচয়ে বন্ধুত্ব। বন্ধুত্বের সূত্র ধরে জন্মদিনের পার্টিতে অংশ নেয়ার আমন্ত্রণ। এরপর যা ঘটেছে তা রোমহর্ষক। বনানী অভিজাত এলাকার স্টার প্যালেস গেস্ট হাউজে রাতভর তরুণীকে গণধর্ষণ করা হয়। গণধর্ষণের শিকার ১৮ বছরের ওই তরুণী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে চিকিৎসাধীন।

তিনি বলেন, ‘আমি এখন এই পশুদের বিচার চাই। না হলে ধর্ষকরা পার পেয়ে যাবে। আরও নারীর সর্বনাশ করবে।’শনিবার রাতের ওই গণধর্ষণের ঘটনায় দায় করা মামলায় দু’জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বনানী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফরমান আলী।

আটক দুই সন্দেহভাজন হলেন- রাজীব আহমেদ (২৮) এবং তার বন্ধু রুবেল হোসেন জয় (২৬)। শনিবার সন্ধ্যায় বনানীর ১৩ নম্বরে অভিযান চালিয়ে এ দু’জন আটক করে পুলিশ।

রাজীবের বাবার নাম মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন। তাদের গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জ। থাকেন ঢাকার শাহ আলী এলাকায়। আর রুবেলের বাবার নাম আমীর হোসেন। তাদের গ্রামের বাড়ি বরিশাল। থাকেন ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট এলাকায়।

ভুক্তভোগী ওই তরুণী মিরপুরের রূপনগর এলাকার বাসিন্দা। তিনি রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার এজাহার বলা হয়, বেশ কিছুদিন আগে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ওই তরুণীর সঙ্গে রাজীবের পরিচয় হয়। শনিবার রাতে জন্মদিনের পার্টির কথা বলে তাকে বনানী ডি ব্লকের ৬৫ নম্বর দি স্টার গেস্ট হাউজে আসতে বলেন রাজীব।

ওই তরুণী রাত সাড়ে ৮টার দিকে গেস্ট হাউজে আসেন। সেখানে রাজীবের সঙ্গে তার বন্ধু রুবেলও উপস্থিত ছিলেন। তারপর রাতভর সেখানে আটকে রেখে তাকে গণধর্ষণ করা হয় বলে মামলায় অভিযোগ করেন তিনি।

গত ২৮ মার্চ বনানীর ‘দ্য রেইন ট্রি’ হোটেলে ধর্ষণের শিকার হন বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া দুই তরুণী। এ ঘটনার ৪০ দিন পর ৬ মে রাজধানীর বনানী থানায় আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের ছেলে সাফাত আহমেদসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন এক তরুণী।

এছাড়া বনানীর একটি আবাসিক হোটেলে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে গত ১৩ ডিসেম্বর বনানী থানায় মামলা করেন এক তরুণী। এতে একমাত্র আসামি করা হয়েছে সংগীতশিল্পী আনুশেহ আনাদিলের ভাই কুশান ওমর সুফিকে (৩৮)।

/ইউডি