• রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫
  • ||

কেনা হচ্ছে চিকিৎসার যন্ত্রপাতি তবে জাপান যাচ্ছেন সচিব-ডেস্ক অফিসার

প্রকাশ:  ০১ নভেম্বর ২০১৮, ১৮:১০
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

প্রতিনিয়ত এগিয়ে যাচ্ছে বিশ্বের চিকিৎসা ব্যবস্থা। এর সাথে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। রোগীদের সঠিক চিকিৎসা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন দেশ থেকে কেনা হচ্ছে নানা ধরনের আধুনিক যন্ত্রপাতি। সে জেরেই জাপান থেকে ডিজিটাল ও মোবাইল এক্সরে, রেডিওলজিক্যাল এবং ক্যাথল্যাব মেশিন কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সেসব মেশিনের গুনগত মান যাচাই করতে জাপান যাবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব, সহকারী সচিব এবং ডেস্ক অফিসার।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্র থেকে জানা যায়, দেশের বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালের জন্য এসব ডিজিটাল ও মোবাইল এক্সরে এবং ক্যাথল্যাব মেশিন কেনা হবে। সেসব মেশিনের প্রি-শিপমেন্ট ইন্সপেকশনের (গুনগত মান যাচাই) জন্য জাপান যাচ্ছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক নির্ধারিত প্রতিনিধি দল।

তবে সেসব মেশিনের গুণগত মান যাচাইয়ের জন্য বিশেষজ্ঞ না পাঠিয়ে তাদের পাঠানো কতটুকু যৌক্তিক তা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রাজধানীর একটি সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা বলেন, অতীতে বহুবার দেখা গেছে যে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের না পাঠিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব, সহকারী সচিবদের পাঠানো হচ্ছে। এটা সরকারের লাখ লাখ টাকা খরচ করে নিছক তাদের বিদেশ ভ্রমণ ছাড়া আর কিছু নয়।

তিনি আরও বলেন, ডিজিটাল, মোবাইল এক্সরে এবং ক্যাথল্যাব মেশিনের গুনগত মানে ব্যাপারে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব, সহকারী সচিবরা কি বুঝবেন? তবুও এসব মেশিন কেনার আগে গুনগত মান যাচাই করতে তাদেরকেই পাঠানো হচ্ছে।

মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মোহাম্মদ নুরা আলম সিদ্দিকীর স্বাক্ষরিত আলাদা দুটি নির্দেশনার একটিতে বলা হয়, ডিজিটাল এক্সরে মেশিন ৫০০ এমএ ও মোবাইল এক্সরে মেশিন ৩০০ এমএ উইথ সিআর এবং রেডিওলজিক্যাল মেশিন কেনার প্রি-শিপমেন্ট ইন্সপেকশনের জন্য জাপানে যাবেন উপ-সচিব মোহাম্মদ নুরা আলম সিদ্দিকী, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন ও তেজগাঁও সিএমএসডির সহকারী পরিচালক ডা. প্রফুল্ল কুমার সাহা।

অপর আরেকটি নির্দেশনায় বলা হয়, একই সময়ে ক্যাথল্যাব মেশিন কেনার প্রি-শিপমেন্ট ইন্সপেকশনের জন্যে ছয় সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল জাপান যাবেন। সে দলের সদস্যরা হলেন জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো আফজালুর রহমান, উপ-সচিব মো.মোতাহের হোসেন, উপ-সচিব হাফিজুর রহমান চৌধুরী, সহকারী সচিব এম কে হাসান মোর্শেদ, স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক ডা. খাজা আবদুল গফুর ও সরকারের কেন্দ্রীয় ওষুধাগারের (সিএমএসডি) ডেস্ক অফিসার ডা. মো.আলী আশরাফ।

উল্লেখ্য, আগামী ১৭ থেকে ২৩ নভেম্বর জাপান সফরে যাবেন মন্ত্রনালয় কর্তৃক নির্ধারিত প্রতিনিধি দল।

কেনা হচ্ছে চিকিৎসার যন্ত্রপাতি,জাপান যাচ্ছেন সচিব-ডেস্ক অফিসার
apps