• রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫
  • ||

'হাসিনা: অ্যা ডটার’স টেল'- পর্দা উঠছে ১৬ নভেম্বর

প্রকাশ:  ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ২০:৫০ | আপডেট : ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ২০:৫৬
বিনোদন প্রতিবেদক
প্রিন্ট

জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শেখ রেহানাসহ বঙ্গবন্ধুর পরিবার নিয়ে পিপলু খান নির্মাণ করেছেন ডকুমেন্ট্রি ফিল্ম ‘হাসিনা : অ্যা ডটার’স টেল’। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা তাদের বাবাকে কীভাবে দেখেছেন, কেমন ছিল সেই দিনগুলো, সেই কথাই বলা হয়েছে ডকুমেন্ট্রি ফিল্মেটিতে।

ছবির ফার্স্ট লুক প্রকাশিত হয়েছিলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিনে। ২১ অক্টোবর রাতে প্রকাশ পায় ছবিতে ব্যবহৃত ‘আমার সাধ না মিটিল, আশা না ফুরিল’ শিরোনামের গানটি। নেপথ্য কণ্ঠে প্রধানমন্ত্রী শোনা যায় শেখ হাসিনার বক্তব্য, ‘বাবা করাচি থেকে ঢাকা ফিরে এলেন। তখন এই গানটা, পান্না লালের গাওয়া ‘‘আমার সাধ না মিটিল, আশা না ফুরিল, সকলই ফুরায়ে যায় মা’’ বারবার শুনে যাচ্ছেন, বারবার শুনে যাচ্ছেন।’

‘হাসিনা: অ্যা ডটার’স টেল’-এর জন্য নতুন করে গানটির সংগীতায়োজন করেছেন কলকাতার দ্বেবজ্যোতি মিশ্র। গানটির ভেতর তিনবার শেখ হাসিনার ব্যাকগ্রাউন্ড ভয়েস ব্যবহৃত হয়েছে। তাতে প্রধানমন্ত্রী বলছেন, ‘টুঙ্গিপাড়া আমার খুবই ভালো লাগে, ভীষণ ভালো লাগে। এখানে এলেই আমার মনে হয় আমি মাটির কাছে ফিরে এসেছি, আমি আমার মানুষের কাছে ফিরে এসেছি। আমার তো মনে হয় টুঙ্গিপাড়া পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর জায়গা।’

প্রকাশিত ভিডিওটির একদম শেষ ভাগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কথা বলেছেন, ‘আমি আমার কোনো স্মৃতি রাখতে চাইনা। এগুলো অপাংক্তেয়, প্রয়োজন নাই। এটা হলো একদম রূঢ় বাস্তবতা।’

দীর্ঘ ৫ বছর ধরে নির্মিত এই প্রামাণ্য চলচ্চিত্রটি দেখার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে পুরো দেশ। শীঘ্রই এই অপেক্ষার অবসান ঘটতে চলেছে বলে জানা গেছে নির্মাতা পিপলু আর খানের সূত্রে। তিনি জানান আগামী ১৬ নভেম্বর মুক্তি পাচ্ছে বহুপ্রতীক্ষিত এই তথ্যচিত্রটি।

নির্মাতা পিপলু খান বলেন, এটি একটি ৭০ মিনিটের ‘ফিচার লেন্থ ডকুমেন্টরি’। ২০১৩ সালে আমি এর কাজ শুরু করি। এটাকে একেবারেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বায়েপিক বা তার পরিবার নিয়ে সিনেমা বলা যাবে না। ‘হাসিনা: অ্যা ডটার’স টেল’ ছবিতে প্রধানমন্ত্রীর বাইরে একজন শেখ হাসিনাকে তুলে ধরার জন্যই বলা হয়েছিল আমাকে। আমিও তাই করেছি। আর এখানে প্রধানমন্ত্রীর কথাই শুধু নয়, তাঁর পরিবারের সদস্যদের কথাও উঠে এসেছে। আমি গণভবনে, বিদেশে বিভিন্ন সময়ে এর দৃশ্যধারণ করেছি। ’

অপেক্ষায় থাকা প্রামাণ্য চলচ্চিত্রটি আগামী ১৬ নভেম্বর মুক্তির পরে রাজধানী ঢাকা ও চট্টগ্রামে প্রদর্শণ করা হবে। এরপর দর্শকদের চাহিদা অনুযায়ী দেশের বিভিন্ন এলাকায় দেখানো হবে ছবিটি।

/ই.কা
হাসিনা : অ্যা ডটার’স টেল
apps