• বুধবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৮, ৯ কার্তিক ১৪২৫
  • ||

রাবিতে ছাত্রীকে যৌন হয়রানিকারী অটোচালক গ্রেফতার

প্রকাশ:  ০৫ জুন ২০১৮, ১৮:০৫
রাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করার অভিযোগে এক অটোচালককে গ্রেফতার করেছে মতিহার পুলিশ।

মঙ্গলবার (৫ জুন) বিকেল ৩টার দিকে নগরীর চৌদ্দপাই এলাকা তাকে আটক করা হয়। পরে নারী নির্যাতন ও দমন আইনে তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতার অটোচালক আকাশ আলী (২৩) নগরীর বেলপুকুরিয়া থানার জোদভাগিরথপুর গ্রামের বাসিন্দা। তার বাবার নাম খলিলুর রহমানের ছেলে।

মতিহার থানার ওসি (তদন্ত) মাহবুব আলম জানান, গত রোববার ভুক্তভোগী ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন মতিহার থানা পুলিশকে অভিযোগ করে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ‘রীতা এক্সপ্রেস’ নামের ওই অটোর খোঁজে সিটি করপোরেশনে যোগাযোগ করা হয়। তবে তারা কোনও তথ্য দিতে না পারলে পুলিশ নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে নজর রাখছিল।

তিনি আরও জানান, একপর্যায়ে রীতা এক্সপ্রেস নামের অটো এবং চালক আকাশকে চৌদ্দপাই এলাকা থেকে আটক করা হয়। পরে তাকে ভুক্তভোগী ছাত্রীর মুখোমুখি করা হলে আকাশই হয়রানিকারী বলে ঘটনার সত্যতা মেলে। পরে তাকে মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

গত রোববার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে দেয়া লিখিত অভিযোগে মার্কেটিং বিভাগের ওই ছাত্রী জানান, শনিবার (২ জুন) সন্ধ্যার দিকে চারুকলা এলাকা থেকে একা আবাসিক হলে ফিরছিলেন তিনি। খালেদা জিয়া হলের পাশের রাস্তা দিয়ে আসার সময় পেছন দিক দিয়ে আসা একটি অটোর চালক হঠাৎ তার ওড়না ধরে টান দেন। হতচকিত হয়ে তিনি (ছাত্রী) সরে যাওয়ার চেষ্টার সময় অটোচালক তার গায়ে হাত দেয়। ছাত্রী সেখানে দাঁড়িয়ে উচ্চস্বরে আশেপাশের মানুষের সহায়তা চাইলে অটোচালক দ্রুত সেখান থেকে সটকে পড়ে।

অটোর পেছনে রাজশাহী সিটি করপোরেশন নিবন্ধিত নম্বর প্লেটযুক্ত থাকলেও দ্রুত গতিতে চালিয়ে চলে যাওয়ায় ওই ছাত্রী নম্বর দেখতে পাননি। তবে অটোর পেছনে ‘রীতা পরিবহন’ লেখা ছিল বলে লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. আনন্দ কুমার সাহা বলেন, অভিযোগ পেয়ে আমি মতিহার থানার পুলিশ কর্মকর্তা মাহবুব আলমকে বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখার অনুরোধ করি। তিনি এবং তার সহকর্মী পুলিশ সদস্যদের তৎপরতায় অভিযুক্ত অটোচালককে আটক করা হয়েছে। এখন থেকে ক্যাম্পাসে উত্যক্তের ঘটনায় জড়িত সব অপকর্মকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অভি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়,যৌন হয়রানি,অটোচালক,গ্রেফতার