• মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫
  • ||

যুক্তরাষ্ট্রে পত্রিকা অফিসে হামলায় নিহত ৫

প্রকাশ:  ৩০ জুন ২০১৮, ০৪:০৩ | আপডেট : ৩০ জুন ২০১৮, ১০:১৬
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ড অঙ্গরাজ্যের ‘ক্যাপিটাল গেজেট' নামের একটি পত্রিকা অফিসে বন্দুকধারীর হামলায় পাঁচজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় বিকেল ৩টার দিকে এ হামলা হয়। ঘটনার পরপরই পুলিশ সন্দেহভাজন হামলাকারীকে আটক করে। তাঁর নাম জারোড র‌্যামোস, যিনি ‘ক্যাপিটাল গেজেড’ নামের ওই দৈনিকটির বিরুদ্ধে বছর ছয়েক আগে মানহানির একটি মামলা করেছিলেন। তাঁর বিরুদ্ধে ফার্স্ট ডিগ্রি মার্ডারের অভিযোগ আনা হয়েছে।

ক্যাপিটাল গেজেট পত্রিকা অফিসটি মেরিল্যান্ডের রাজধানী অ্যানাপোলিস শহরে অবস্থিত। ‘দ্য বাল্টিমোর সান’ মিডিয়া গ্রুপের মালিকানাধীন স্থানীয় এ পত্রিকাটি অষ্টাদশ শতকের। হামলার বর্ণনা দিতে গিয়ে পত্রিকাটির ক্রাইম রিপোর্টার ফিল ডেভিস বলেন, ‘আপনি নিজের ডেস্কের নিচে লুকিয়ে আছেন; আর হামলাকারী কয়েকজনকে হত্যার পর বন্দুক রিলোড করছে—এর চেয়ে ভয়াবহ দৃশ্য আর কিছু হতে পারে না।’ তবে হামলাকারী কয়েকজনকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর পর থেমে যান। ডেভিস বলেন, ‘আমি বুঝলাম না, তিনি কেন হঠাত্ করে গুলি চালানো বন্ধ করে দিলেন।’

অ্যানি আরুন্ডেল কাউন্টির ভারপ্রাপ্ত পুলিশ প্রধান বিল ক্রাম্ফ সাংবাদিকদের জানান, পরিকল্পিতভাবে এ হামলা চালানো হয়েছে। হামলায় পাঁচজন নিহত ও দুজন গুরুতর দুজন আহত হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি।

নিহতদের মধ্যে আছেন কমিউনিটি রিপোর্টার ওয়েন্ডি উইন্টার্স (৬৫), বিপণন কর্মকর্তা রেবেকা স্মিথ (৩৪), সহকারী সম্পাদক ও কলামিস্ট রবার্ট হায়াসেন (৫৯), সম্পাদকীয় বিভাগের জেরাল্ড ফিচম্যান (৬১) এবং রিপোর্টার জন ম্যাকনামারা (৫৬)।

পুলিশ ও পত্রিকার কর্মীদের ভাষ্য অনুযায়ী, হামলাকারী একটি শটগান ও স্মোক গ্রেনেড নিয়ে পত্রিকা অফিসে প্রবেশ করে। এরপর একটি কক্ষের দরজা থেকে ভেতরে থাকা কর্মীদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়। বিল ক্রাম্ফ বলেন, ‘পুলিশ এখনো হামলাকারীর উদ্দেশ্য নিশ্চিত হতে পারেনি। তবে আমরা শুনেছি যে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে পত্রিকাটিকে হুমকি দেওয়া হয়েছিল।’

পুলিশ এখনো নিশ্চিত না করলেও মার্কিন গণমাধ্যম জানিয়েছে, হামলাকারীর নাম জারোড র‌্যামোস। বয়স ৪০ বছরের কাছাকাছি। তিনি মেরিল্যান্ডের বাসিন্দা। ২০১১ সালে ‘ক্যাপিটাল গ্যাজেট’-এ তাঁর বিরুদ্ধে নারী নির্যাতনের বিষয়ে একটি খবর প্রকাশিত হয়। ওই খবরের জের ধরে ফৌজদারি মামলার মুখে পড়েন রামোস। পরের বছর তিনি ক্যাপিটাল গেজেটের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন।

অ্যান অ্যারুন্ডেল কাউন্টির নির্বাহী কর্মকর্তা স্টিভ চাহ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘খবর পাওয়ার এক মিনিটের মধ্যে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পুলিশ গিয়ে দেখতে পায়, হামলাকারী একটি ডেস্কের নিচে লুকিয়ে রয়েছেন। তাঁর সঙ্গে পুলিশের কোনো গোলাগুলি হয়নি।’

যুক্তরাষ্ট্রে